দুদকের মামলায় বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক কারাগারে

  

পিএনএস ডেস্ক : চোরাই গাড়ির রেজিস্ট্রে শন দেয়ার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় কারাগারে গেলেন বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) সহকারী পরিচালক আইয়ুব আলী আনসারী। বরিশাল বিশেষ আদালতের বিচারক মো. মোহসিনুল ইসলাম সোমবার তাকে কারগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে একাধিক মামলার কয়েকটি তারিখে আদালতে অনুপস্থিত থাকায় আইয়ুব আলী আনসারীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা দিয়েছিলেন আদালত।

আইয়ুব আলী আনসারী বর্তমানে বিআরটিএ’র ঢাকা কার্যালয়ে কর্মরত রয়েছেন। এর আগে বরিশাল, ভোলা ও ঝালকাঠীতে পরিদর্শক এবং সহকারী পরিচালক পদে কর্মরত থাকাবস্থায় তার বিরুদ্ধে অগণিত দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। ড্রাইভিং লাইসেন্স ও গাড়ি রেজিস্ট্রেশনে আবেদনকারীদের জিম্মি করে টাকা আদায়ের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে চোরাই গাড়ির রেজিস্ট্রেশন দেয়ার অভিযোগ তার বিরুদ্ধে সর্বাধিক এমনটাই জানিয়েছে দুদক।

তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোখলেসুর রহমান বাচ্চু জানান, ২০১৭ সালে বরিশাল বিআরটিএ’তে কর্মরত পরিদর্শক পদে থাকাবস্থায় একটি গাড়ির রেজিস্ট্রেশন আবেদনের সরেজমিনে পরিদর্শন করেন তিনি। তার দেয়া তথ্যের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গাড়িটির রেজিস্ট্রেশন দেয়া হয়। পরবর্তীতে দেখা যায় ওই গাড়িটি ছিল একটি চোরাই গাড়ি। এ ঘটনায় দুদক তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও অভিযোগপত্র দিয়েছে।

অ্যাডভোকেট বাচ্চু জানান, আইয়ুব আলী আনসারী উচ্চ আদালতের জামিনে ছিলেন। জামিনের মেয়াদ শেষে তিনি মামলার কয়েক তারিখে আদালতে আসলেও বিচারক ছিলেন না। গত তারিখে আনসারী ছিলেন অসুস্থ। এসব কারণে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা দিয়েছিল আদালত। সোমবার তিনি আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তার আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পিএনএস/এসআইআর

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন