শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় মামলা

  

পিএনএস ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে বেপরোয়া গতিতে পণ্যবাহী জাহাজ চালিয়ে সাবিত আল হাসান নামে মুন্সিগঞ্জগামী একটি লঞ্চ ডুবিয়ে ৩৪ জন যাত্রীকে হত্যার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে বিআইডব্লিউটিএ।

মঙ্গলবার (৬ মার্চ) রাতে বিআইডব্লিউটি’র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর নৌ নিরাপত্তা বিভাগের উপ-পরিচালক( ভারপ্রাপ্ত) বাবু লাল বদ্দ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

বুধবার (৭ মার্চ) সকালে বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা মামলার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

মামলায় হত্যার উদ্দেশে বেপরোয়া গতিতে পণ্যবাহী জাহাজ চালিয়ে লঞ্চটি ডুবিয়ে ৩৪ জনের প্রাণহানি ঘটানো হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে মামলায় আসামি হিসেবে কারো নাম উল্লেখ করা হয়নি।

মামলার বাদী বাবু লাল বৈদ্য জানান, পেনাল কোড ২৮০, ৩০৪, ৩৩৭, ৩৩৮, ৪২৭, ৪৩৭ ধারাসহ ইনল্যান্ড শিপিং অর্ডিন্যান্স ১৯৭৬ এর ৭০ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। হত্যার উদ্দেশে ও বেপরোয়া গতিতে নৌযান চালিয়ে ৩৪ জনকে হত্যা সংঘটিত করার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় আসামি হিসেবে কারো নাম উল্লেখ করা হয়নি।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা জানান, বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলাটি দায়ের করেছেন। এতে হত্যার উদ্দেশে বেপরোয়া গতিতে জাহাজ চালিয়ে হত্যা সংঘটিত করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আশা করছি, খুব শিগগিরই দোষীদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।

উল্লেখ্য, গত রোববার (৪ মার্চ) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জের উদ্দেশ্যে অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ছেড়ে যাওয়া এম এল সাবিত আল হাসান লঞ্চটি শীতলক্ষ‌্যা নদীর কয়লাঘাট এলাকায় আসলে একটি কার্গো জাহাজ বেপরোয়া গতিতে পেছন থেকে ধাক্কা দিলে লঞ্চটি ডুবে ৩৪ জনের প্রানহানি ঘটে। এরপর ১৮ ঘণ্টা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে গত সোমবার দুপুর ১২টায় ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার করে বিআইডাব্লিউটিএ। লঞ্চডুবিতে নিখোঁজ ৩৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এসময় প্রতি নিহতের প্রতি পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা সহায়তা দেয় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন