এক লাড্ডুর দাম সাড়ে ১৭ লাখ!

  

পিএনএস ডেস্ক: মিষ্টদ্রব্যের মধ্যে অন্যতম সুস্বাদু লাড্ডু। ডায়াবেটিস নেই, অথচ লাড্ডু একবার খেলে আর খেতে চাইবেন না- এমন মানুষ খুব কম খুঁজে পাওয়া যাবে। কিন্তু তাই বলে হীরের দামে তো আর লাড্ডু কিনে খাওয়া সম্ভব নায়। নেহায়েত কোটিপতি লোক ছাড়া এমন শখ কেইবা করবে। যেখানে একটি মাত্র লাড্ডুর দাম উঠেছে ১৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা!

জিভে জল চলে এলেও সেই দিল্লিকা লাড্ডু তো আর সবার ভাগ্যে নেই। এবার দিল্লির সেই লাড্ডুর সীমানা পেরিয়ে গেছে ভারতেরই হায়দ্রাবাদের বালাপুরের এক লাড্ডু। যেখানে এক লাড্ডু কিনতে অনেক মানুষের ঘরবাড়ি কিংবা সারা জীবনের উপার্জন দিয়েও সম্ভব নয়।

কিন্তু এমন অদ্ভূত ঘটনার কারণ কী? এক লাড্ডুর দাম ১৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা কেন?

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, বালাপুরের ওই একটি লাড্ডুর এতো দামের প্রথম কারণ, লাড্ডুটির ওজন ২১ কেজি। গণেশ বিসর্জন উপলক্ষে বৃহৎ এ লাড্ডু তৈরি করে তা নিলামে তোলেন বিক্রেতা।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ লাড্ডুটির সর্বোচ্চ দাম উঠে ১৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা। এর পর সেই মোটা অংকের টাকা দিয়েই লাড্ডুটি কিনে নেন কোলানু রাম রেড্ডি নামে স্থানীয় এক ধনকুবের।

সোনার মোড়কে ওই বিশাল লাড্ডুটি রূপার থালায় করে রাম রেড্ডিকে দেয়া হয়। তিনি ১৭ লাখ টাকা দামের লাড্ডু মাথায় নিয়ে বাড়ি ফিরেন।

গেল বছরই একই স্থান থেকে ১৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা দিয়ে একটি লাড্ডু কিনেছিলেন কোনালু রাম রেড্ডি। এবারও নিজেই নিজের রেকর্ড ভাঙলেন।

উল্লেখ্য, গণেশ বিসর্জনে বিশালাকার লাড্ডু বানিয়ে তা নিলামে তোলা বালাপুরের প্রচলিত ধর্মীয় রীতি। ১৯৯৪ সালে এক লাড্ডু ১ হাজার ১১৬ টাকায় বিক্রি করার মধ্য দিয়ে গত ২৫ বছর ধরে সেখানে এই লাড্ডু নিলামের প্রচলন। স্থানীয় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, নিলাম থেকে এই লাড্ডু যে পরিবারে যাবে সেই পরিবার দেবতার আশীর্বাদ প্রাপ্ত হয়।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech