ভারতে গোবর দিয়ে রঙ তৈরি!

  

পিএনএস ডেস্ক : গোবর সাধারণত ফসলের জমিতে সার হিসেবেই আমাদের দেশে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়৷ জ্বালানি হিসেবেও গ্রামে এর ব্যবহার প্রচলন রয়েছে৷ ভারতে গরুকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে নতুন নতুন ব্যবসা ও উদ্ভাবন। পণ্য বিক্রির জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে আমাজন, ফ্লিপকার্ট বা ই-বে'র মতো বড় বড় ই-কমার্স সাইটগুলো।

বিশেষ করে গোবর থেকে তৈরি সাবান, ফেসওয়াশ, শ্যাম্পু এমনকি টুথপেস্ট পর্যন্ত বাজারজাত করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে এসব পণ্যের জনপ্রিয়তাও লক্ষ্য করা গেছে। ই-কমার্স সাইটগুলোতেও সহজে এসব পণ্য মেলে।


গত বছর ভারতে রাখি বন্ধনের আগে গোবর দিয়ে তৈরি রাখি সংবাদ শিরোনামে এসেছিল। এবার গরুর বর্জ্য ব্যবহার করে তৈরি হল রঙ। সম্প্রতি দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গডকরি ভারতে প্রথম গোবর দিয়ে তৈরি এই পরিবেশ বান্ধব রঙ উদ্বোধন করেন। অভিনব এই রঙের নাম 'খাদি প্রাকৃতিক রঙ'।

ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে গোবর রঙের উদ্ভাবকরা দাবি করছেন, অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্যযুক্ত খাদি প্রাকৃতিক রঙ সম্পূর্ণ পরিবেশ বান্ধব। এই রঙে সীসা, পারদ, ক্রোমিয়াম, আর্সেনিক, ক্যাডমিয়ামের মতো বিষাক্ত কোনও উপাদান নেই। রঙ তৈরির প্রধান উপাদান হিসাবে গোবর ব্যবহার করা হয়েছে। তবে সম্পূর্ণ গন্ধহীন। পাশাপাশি এটির উৎপাদন খরচও অন্য বাজার চলতি রঙের তুলনায় যথেষ্ট কম। আর গুণগত মান নিয়েও প্রশ্ন তোলার অবকাশ কম। কারণ ব্যুরো অব ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ড-এর শংসাপত্র 'খাদি প্রাকৃতিক রঙ'-এর ঝুলিতে আছে।

গোবর দিয়ে তৈরি 'খাদি প্রাকৃতিক রঙ' দুটি রূপে পাওয়া যাবে- ডিসটেম্পার এবং প্লাস্টিক ইমালশন। এর দাম কত? তাও জানানো হয়েছে ভারত সরকারের পক্ষে।

নামকরা পেইন্ট সংস্থাগুলোর যে দামে রঙ বিক্রি করে তার অর্ধেক দামেই পাওয়া যাবে 'খাদি প্রাকৃতিক রঙ'। এক্ষেত্রে প্রতি লিটার ডিসটেম্পার রঙের দাম পড়বে ১২০ রুপি। তবে ইমালশন রঙের দাম তুলনামূলকভাবে বেশি। এর প্রতি লিটারের দাম পড়বে ২২৫ রুপি। খুব শিগগির এই রং বাজারে চলে আসবে বলে জানা গিয়েছে।

পিএনএস /জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন