অস্ট্রেলিয়ার ভ্রমণ সতর্কতা বাংলাদেশে এখনো উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে

  


পিএনএস ডেস্ক: বাংলাদেশে এখনো সন্ত্রাসী হামলার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে। এজন্য স্থানীয় নিরাপত্তা বিষয়ক কর্তৃপক্ষও রয়েছে উচ্চ সতর্কতায়। আরো সহিংসতার পরিকল্পনা করতে পারে এমন ব্যক্তিদের অব্যাহতভাবে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। বাংলাদেশ সম্পর্কে ভ্রমণ সতর্কতায় এ কথা বলেছে অস্ট্রেলিয়া। ১ ডিসেম্বর আপডেট করা ওই সতর্কতায় বাংলাদেশে অবস্থানকারী ও এদেশে ভ্রমণে আসতে চান এমন অস্ট্রেলিয়ানদের সতর্ক করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া সরকারের ওই সতর্কতায় বলা হয়েছে, বিশ্বাসযোগ্য তথ্য রয়েছে যে, জঙ্গিরা বাংলাদেশে পশ্চিমা স্বার্থকে টার্গেট করার পরিকল্পনা করে থাকতে পারে।

এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে রাজনৈতিক সহিংসতা নিয়মিত ঘটে। রাজনৈতিক দলগুলোর হরতাল, অবরোধ, যুদ্ধাপরাধের বিচারসহ এমন ইভেন্টগুলোতে সহিংস প্রতিক্রিয়া হতে পারে। তাই নিজ দেশের নাগরিকদের এক্ষেত্রে পূর্বেই সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ঢাকায় হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলার প্রসঙ্গ তুলে ধরা হয়েছে। বলা হয়েছে ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড দ্য লিভ্যান্ট (আইসিল)।

এছাড়া ২০১৫ সাল থেকে বাংলাদেশে আরও ভয়াবহ কিছু হামলা হয়েছে। এর দায় স্বীকার করেছে আইসিল ও আল-কায়েদা ইন দ্য ইন্ডিয়ান সাব-কন্টিনেন্ট (একিউআইএস)। যাদেরকে হত্যা করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছেন বিদেশি, ধর্মীয় সংখ্যালঘু, মানবাধিকার কর্মী, এলজিবিটি অধিকার কর্মী ও ব্লগার। সন্ত্রাসী হামলার হুমকি থাকার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশে অবস্থানরত অস্ট্রেলিয় কর্মকর্তাদের প্রকাশ্য স্থানগুলো, বিশেষ করে হোটেল, রেস্তোরাঁ, সুপারমার্কেটে না যেতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। রাতে গাড়িতে এবং সীমিত পরিসরে চলাচলে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এতে আরো বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকায় টেকপয়েন্ট বাড়িয়েছে নিরাপত্তা বিষয়ক কর্তৃপক্ষ। বিশেষ করে বিদেশি ও কূটনৈতিক এলাকা বলে পরিচিত বনানী, বারিধারা ও গুলশানে এটা বেশি বাড়ানো হয়েছে। তাই চলাচলের সময় অস্ট্রেলীয় নাগরিক, দ্বৈত নাগরিকত্ব ধারীদের পাসপোর্ট অথবা আইডি সঙ্গে রাখতে বলা হয়েছে। সূত্র: মানব জমিন

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech