শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে বৃষ্টির ঝাপটা

  

পিএনএস ডেস্ক : শরতের বিদায়, হেমন্তের আবির্ভাব। দিনের দৈর্ঘ্য হ্রাস। নিম্নচাপে বৃষ্টি, যা বইয়ে দিচ্ছে শীতল হাওয়া। এ যেন শীতের আগমনী বার্তা। যদিও বাংলা পঞ্জিকার হিসেবে হেমন্তের পর অগ্রহায়ণ পেরিয়ে তবেই আসবে শীতকাল। কিন্তু প্রকৃতির খেয়ালে হেমন্তের শুরুতেই শীতের আগাম আমেজ অনুভূত হচ্ছে।
আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, আজ শুক্রবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে টাঙ্গাইলে ২৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া সিলেটে ২৩ দশমিক ৭ এবং কুমিল্লা ও ফেনীতে ২৩.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অথচ এসব অঞ্চলে গতকাল বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল টাঙ্গাইলে ৩২.২ , সিলেটে ৩২.৭, কুমিল্লা ৩০.৮ ও ফেনীতে ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে বোঝায় যাচ্ছে, কুয়াশা পড়া শুরু না হলেও তাপমাত্রা হ্রাসের সঙ্গে বৃষ্টি ও শীতল হাওযা- একটা শীত শীত আমেজ ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিরাজ করছে।

তবে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার ব্যবধান যতই কমবে শীত শীত ভাব তত বেশি অনুভূত হবে।

তখন দিনের ও রাতের তাপমাত্রা দুটোই কমে আসবে।
অনেকের হেমন্তের শুরুতে বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ, বৃষ্টি-এক কথায় শীতের আগমনী বার্তা। তবে আরেক শ্রেণির মানুষ এই শীত শীত আমেজকে সাময়িক বলে মনে করছেন। তাদের দাবি, বৃষ্টির কারণে সারাদেশে তাপমাত্রা কিছুটা হ্রাস পেয়েছে। যে কারণে কিছুটা শীত শীত অনুভূত হচ্ছে। তাদের মতে, শীতের আগমণ কি না সেটা বুঝতে নিম্নচাপ কেটে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech