‘বায়তুল মুকাদ্দাস মুসলমানদের রক্তের চাইতেও পবিত্র’ - জাতীয় - Premier News Syndicate Limited (PNS)

‘বায়তুল মুকাদ্দাস মুসলমানদের রক্তের চাইতেও পবিত্র’

  

পিএনএস ডেস্ক: জেরুজালেম শুধু ফিলিস্তিনি মুসলমানদের নয়, গোটা মুসলিম উম্মাহর বলে উল্লেখ করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী।

মুসলমানদের পবিত্র শহর আল কুদসকে (জেরুজালেম) ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তারা এ কথা বলেন।

তারা বলেছেন, জেরুজালেম শুধু ফিলিস্তিনি মুসলমানদের নয়, গোটা মুসলিম উম্মাহর। ইসলামের প্রথম কেবলা বায়তুল মুকাদ্দাসের এই ভূমি মুসলমানদের রক্তের চাইতেও পবিত্র। এটা কখনও কোনো ইহুদি গোষ্ঠীর হতে পারে না।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক যুক্ত বিবৃতিতে তারা এ কথা বলেন।
হেফাজত নেতারা বলেন, পবিত্র মসজিদুল আকসাকে ঘিরে গড়ে ওঠা জেরুজালেম নগরীকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসেডিন্ট অন্যায়ভাবে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করে মুসলিম উম্মাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধ লাগিয়ে দিয়েছে। তার সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিশ্ব মুসলিম নেতারা ও জনসাধারণকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

হেফাজত নেতৃদ্বয় আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট একজন মস্তিষ্কবিকৃত লোক। তার একের পর এক নানা বিতর্কিত ও আগ্রাসনমূলক সিদ্ধান্তে বিশ্বশান্তি মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্রের ভাবমূর্তিকে বিশ্ববাসীর কাছে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

তারা বলেন, বিশ্ববাসীর কর্তব্য হলো শান্তি নিরাপত্তার স্বার্থে এই উগ্রবাদী প্রেসিডেন্টের লাগাম টেনে ধরতে সোচ্চার প্রতিবাদে শামিল হওয়া। কারণ, যুক্তরাষ্ট্রের কূট রাজনীতি ও আগ্রাসী সমরনীতির কারণে গোটা মধ্যপ্রাচ্যসহ এশিয়া ও আফ্রিকার বহু দেশে চরম অস্থিতিশীলতা ও সংঘাতময় পরিস্থিতি বিরজ করছে।

হেফাজত নেতৃদ্বয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক অধিকৃত ফিলিস্তিনের জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে একতরফাভাবে স্বীকৃতি দেয়ার প্রতিবাদে আগামীকাল শুক্রবার বাদ জুমা হেফাজতে ইসলামের উদ্যোগে সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিলে শামিল হওয়ার জন্য হেফাজত নেতাকর্মী, ওলামায়ে কেরাম ও জনসাধারণের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
আরাকান স্বাধীন করতে সামরিক অভিযান চালান: হেফাজত
ঢাকা: আরাকান রাজ্য স্বাধীন করতে বাংলাদেশ সরকারকে সামরিক অভিযান চালানোর আহ্বান জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ, আর এতে দেশের ১৬ কোটি জনগণ পাশে থাকবে বলে মন্তব্য করেন দলের নেতারা।

সোমবার মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচীর আগে বায়তুল মোকাররমের সামনে আয়োজিত সমাবেশে এই দাবি জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগর সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় কমিটির নায়েবে আমির আল্লামা নুর হোসেন কাশেমী।

সমাবেশে হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, রোহিঙ্গাদের খাদ্য, বস্ত্র ও বাসস্থানের ব্যবস্থা খুব দ্রুত করতে হবে। অসহায় রোহিঙ্গাদের পাশে দাড়ানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সেনাবাহিনী দিয়ে এই রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে।

উল্লেখ্য, মায়ানমার দূতাবাস ঘেরাও করার উদ্দেশ্যে সকাল থেকেই বায়তুল মোকাররমের সামনে রাস্তায় জড়ো হতে থাকে হেফাজত কর্মীরা। রাস্তায় অস্থায়ী মঞ্চ করে সেখানে সমাবেশ করা হয়। সমাবেশে হেফাজত নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech