ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁওয়ে তীব্র যানজট

  


পিএনএস ডেস্ক: ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট এখন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত ৩ দিনের মতো আজ বুধবারও নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের মেঘনা সেতুর টোলপ্লাজা এলাকা থেকে কাঁচপুর সেতু পর্যন্ত হয়ে এক পাশে রাজধানী যাত্রাবাড়ি অপর পাশে মেঘনা সেতু পার হয়ে কুমিল্লার দাউদকান্দি ছাড়িয়েছে এ যানজট। প্রায় দীর্ঘ ৪০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে সৃষ্ট এ যানজটের ফলে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হতে হচ্ছে।

যানজটের আটকাপড়া যাত্রী সাধারণের অভিযোগ- মঙ্গলবার সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কাঁচপুরে যানজটের পরিস্থিতি পরিদর্শনে এসে আজ বুধবার থেকে যানজট নিরসন হবে বলে যে ঘোষণা দিয়েছে তা মিথ্যে হয়ে গেছে। যানজট নিরসনের ঘোষণার পর পরই আরো যানজট বেড়ে গেল।

মেঘনা ও দাউদকান্দি সেতুর টোলপ্লাজায় টোল আদায় ধীর গতি, ওজন স্কেলের অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা অপর্যাপ্ত ও ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টো পথে যানবাহন চলাচল ও মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলার কারণে এ যানজটের কারণ বলে জানান চলাচলরত যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা।

মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, আজ বুধবার সকাল ৬টা থেকে মহাসড়কের মেঘনা সেতু ও কাচঁপুর সেতু এলাকায় এ যানজট এ যানজটের সৃষ্টি। তবে চট্টগ্রামমুখী সড়কে যানজটটি তীব্র আকার ধারণ করছে। সোনারগাঁওয়ে মেঘনা সেতু এক পাশে কুমিল্লার দাউদকান্দি এবং কাঁচপুর সেতু অপর পাশে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত প্রায় ৪০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে আটকা পড়ে থাকে যাত্রীবাহী ও মালবাহী যানবাহন। প্রতিটি যানবাহনের চাকা চলছে ধীরগতিতে। যানবাহনের চাকা এক ঘন্টা পর পর ঘুরছে। কাঁচপুর এলাকা দেখা গেছে অনেকে বাস থেকে নেমে হেঁটে চলাচল করতে দেখা গেছে। মহাসড়কের একপাশে রিকশা করে ও হেঁটে স্থানীয় যাত্রীসাধারণকে চলাচল করতে দেখা গেছে।

ঢাকা থেকে নোয়াখালীগামী জোনাকী পরিবহনের চালক আসাদুর রহমান আসু জানান, ঢাকার সায়েদাবাদ থেকে সকাল ৮টায় ছেড়ে এসে মেঘনা সেতু পর্যন্ত আসতে ৬ ঘন্টা সময়ে লেগেছে। যানজট না থাকলে এটুকু দুরত্বের সড়ক পার হতে আমাদের সর্ব্বোচ ৪০ মিনিট সময় লাগত।

চট্টগ্রামগামী সৌদিয়া পরিবহনের যাত্রী সবুজ, সারোয়ার, মোতালেব জানান, ঢাকা থেকে মেঘনা পার হতে ৮ ঘন্টা সময় নষ্ট হলো। এ সময়ে অন্য সময় আমরা চট্টগ্রাম পৌঁছে যেতাম।

কে কে কার্গো সার্ভিসের কাভার্ডভ্যান চালক আবুল হোসেন শিকদার জানান, ভোর ৬টা থেকে এ সড়কে যানজট শুরু হয়। মদনপুর থেকে মেঘনা সেতু পর্যন্ত আসতে ৪ ঘন্টা সময় নষ্ট হয়েছে।

এদিকে যানজটে আটকাপড়া যাত্রী সাধারণ অনেকেই অভিযোগ করেন বলেন, মঙ্গলবার সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কাঁচপুরে যানজটের পরিস্থিতি পরিদর্শনে এসে আজ বুধবার থেকে যানজট নিরসন হবে বলে যে ঘোষণা দিয়েছে তা মিথ্যে হয়ে গেছে। যানজট নিরসনের ঘোষণার পর পরই আরো যানজট বেড়ে গেল। আজ বুধবার তিনি রাস্তায় এসে দেখুক রাস্তায় যানজটের কি হাল।

বিভিন্ন পরিবহনের চালক ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে যানজটের কারণ অনুসন্ধান করে জানা যায়, মূলত মেঘনা ও দাউদকান্দি সেতুর টোলপ্লাজায় টোল আদায়ে ধীর গতি, ওজন স্কেলের অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা কম ও ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টো পথে যানবাহন চলাচল ও মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলার কারনে এ যানজট।

মেঘনা সেতুর টোলপ্লাজার ওজন স্কেলে গিয়ে দেখা যায়, ধীরগতিতে পরিবহনের ওজন পরিমাপ করা হচ্ছে। শতশত ট্রাক লরি মহাসড়কের উপর সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আছে।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি কাইয়ুম আলী সরদার জানান, মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলছে এবং গাড়ির চাপ বেড়ে যাওয়ায় মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যানজট নিয়ন্ত্রনে কাজ করে যাচ্ছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech