কোটা আন্দোলনকারী সুহেলকে গ্রেপ্তার দেখাল পুলিশ

  

পিএনএস ডেস্ক : কোটা সংস্কার আন্দোলনের সংগঠক ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম আহ্বায়ক এপিএম সুহেলকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) গ্রেপ্তার করেছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে গণজাগরণ মঞ্চের নেত্রী লাকী আক্তারের রাজধানীর শান্তিনগরের বাসা থেকে ডিবি পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়। তবে প্রথমে তাকে আটক বা গ্রেপ্তারের কথা অস্বীকার করে পুলিশ। কয়েকজন কর্মকর্তা সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত গণমাধ্যমে জানান, সুহেল নামে কাউকে আটক বা গ্রেপ্তার করা হয়নি। তবে সন্ধ্যায় তাকে গ্রেপ্তারের কথা স্বীকার করা হয়। অবশ্য তাকে কোন মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে তা জানানো হয়নি।

ডিএমপির উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান রাত ৮টায় জানান, সুহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার তাকে আদালতে হাজির করা হবে।

ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি লাকী আক্তার জানান, বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে ডিবি পুলিশের আট থেকে ১০ জনের একটি দল শান্তিনগরে তার বাসায় অভিযান চালায়। তারা দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। পরে বাড়ির মালিককে সঙ্গে নিয়ে তার বাসায় তল্লাশি চালিয়ে তারা সুহেলকে নিয়ে যায়। আটকের আগে আলাদা একটি কক্ষে সুহেলকে হাতকড়া পরিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

লাকি আক্তার জানান, সুহেল বিশ্ববিদ্যালয়ে তার বিভাগের ছোট ভাই। সেই সূত্রে মাঝে মধ্যে সে এসে তার বাসায় থাকত।

এর আগে গত ২৩ মে বিকেলে ক্যাম্পাস থেকে ফেরার পথে হামলার শিকার হয়েছিলেন জবি ইংরেজি বিভাগের দশম ব্যাচের ছাত্র সুহেল। তখন তিনি জানিয়েছিলেন, কোটা আন্দোলনের জন্য দ্বিতীয়বার তাকে মার খেতে হয়েছে। প্রথমবার চড়-থাপ্পড় ও লাথি মারা হয়েছিল। দ্বিতীয়বারের মারধরে ঠোঁটের বাইরে ৯টা ও ভেতরে দু'টি সেলাই দিতে হয়েছে।

সুহেল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক নাসির উদ্দিন আহমেদকে চাকরিচ্যুত করার প্রতিবাদ আন্দোলনেও সক্রিয় ভূমিকায় ছিলেন।

পিএনএস/জে এ /

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech