`প্রতিটি উপজেলার প্রশাসনিক কেন্দ্র হবে শহর'

  



পিএনএস ডেস্ক: স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দেশের পৌরসভাবিহীন উপজেলা সদরগুলোতে উন্নত নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতকরণে কাজ করছে সরকার। পৌরসভাহীন ১৮৩ উপজেলার অবকাঠামো উন্নয়ন ও নাগরিকদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে এক হাজার ৩৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘উপজেলা শহর (নন মিউনিসিপ্যাল) মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন ও মৌলিক অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে দেশের প্রতিটি উপজেলা শহর আর নগরীর মধ্যে কোনো পার্থক্য থাকবে না।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কাকরাইলে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর (ডিপিএইচই) মিলনায়তনে স্থানীয় সরকার বিভাগ আয়োজিত ‘কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার’ প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থায় স্থানীয় সরকারের গুরুত্ব বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহকে নীতি-নির্ধারণী ও তত্ত্বাবধানমূলক কাজের সুযোগ করে দিয়েছেন। তিনি স্থানীয় সরকারের প্রতিটি স্তরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচনের ব্যবস্থা করেছেন। প্রতিটি উপজেলা পরিষদে একটি করে ৫০০ আসন বিশিষ্ট অডিটরিয়াম-কাম-মাল্টিপারপাস হল করা হচ্ছে। ইউনিয়ন পরিষদে ওয়ানস্টপ-সার্ভিস প্রদানে তিন হাজার ১৫০টি ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে জনকল্যাণকর করতে কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক সরকার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর। উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদ পর্যায়ে দীর্ঘমেয়াদে উন্নয়ন দৃষ্টিভঙ্গি ও ভিশন তৈরির জন্য তিনি জনপ্রতিনিধিদের আহ্বান জানান।

পরে মন্ত্রী ‘কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার’ শীর্ষক প্রকল্পের অবহিতকরণ কর্মশালার শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইউএনডিপির কান্ট্রি ডিরেক্টর সুদীপ্ত মুখার্জি, বাংলাদেশস্থ সুইজারল্যান্ড দূতাবাসের উপমিশন প্রধান বেইতে আইসেসার এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও দেশি-বিদেশি সংস্থার প্রতিনিধিরা।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech