জানুয়ারিতে নির্বাচন আয়োজন কঠিন: ইসি সচিব

  

পিএনএস ডেস্ক : জানুয়ারিতে নির্বাচন আয়োজন করা কমিশনের জন্য কষ্টদায়ক হবে বলে মন্তব্য করে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলাল উদ্দিন জানিয়েছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দাবির বিষয়টি পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

বুধবার রাতে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।

এছাড়া বিএনপি‘র দলীয় কার্যালয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ আচরণবিধি লঙ্ঘন নয়। তবে নয়াপল্টনে যে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে, সেটা কেন ঘটলো তা আমরা খতিয়ে দেখবেন বলে জানান তিনি।

হেলাল উদ্দিন বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের বিষয়টি স্বাভাবিক, এটাকে আচরণবিধি লঙ্ঘন বলা যাবে না। আওয়ামী লীগের ক্ষেত্রেও উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের চিত্র আমরা দেখেছি।

নয়াপল্টনের ঘটনায় নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে আওয়ামী লীগ। আচরণবিধি লঙ্ঘন না হলে ইসি কী ধরনের ব্যবস্থা নেবে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমামের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল আমাদের সঙ্গে বৈঠক করেছে। তারা ব্যবস্থা নেওয়া দাবি জানিয়েছে। আমরা পুলিশের কাছে জানতে চাইব- কেন এই সহিংসতা হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় প্রটোকল ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন- এটা আচরণবিধি লঙ্ঘন কি না জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, আমরা দেখব এটা আচরণবিধি লঙ্ঘন কি না।

আরেক প্রশ্নের জবাবে হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণের পরে এবং বিএনপি’র মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু হলে শো ডাউন না করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বিষয়টা এমন না। দলীয় কার্যালয়ে নেতা-কর্মীরা উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করবেন এটা স্বাভাবিক বিষয়। আমরা চিঠি দিয়েছি যেন ভবিষ্যতে তারা যখন রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়ন ফরম জমা দেবেন- সেখানে যেন বড় ধরনের শো ডাউন না হয়।

এরআগে এর আগে বিকেল সাড়ে ৩টায় ইসির সঙ্গে বৈঠকে বসেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পুনঃতফসিলসহ সামগ্রিক বিষয়ে আলোচনার জন্য ইসিতে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপত্র এবং বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, ভোটের তারিখ ৩ সপ্তাহ পেছানোসহ ঐক্যফ্রন্টের দাবিগুলো নির্বাচন কমিশন বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, 'আমরা নির্বাচন তিন সপ্তাহ পিছিয়ে দেয়ার দাবি করেছিলাম। তারা বলেছেন, তারা আলোচনা করে এ ব্যাপারে তারা সিদ্ধান্ত নেবেন।'

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech