এরদোগানের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ তসবিহ তৈরি করলেন যে বাংলাদেশি যুবক!

  

পিএনএস ডেস্ক: রিসেপ তায়্যিপ এরদোগান, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। দেশটির জনপ্রিয় এই নেতা এখন মুসলিম বিশ্বেরও অন্যতম জনপ্রিয় নেতায় পরিণত হয়েছেন। ফিলিস্তিন, কাশ্মির, মিয়ানমার, চীনসহ বিশ্বের যখন যেপ্রান্তে মুসলিমরা নির্যাতিত হচ্ছেন তখন একটি কণ্ঠসর উচ্চারিত হচ্ছেন- তা হলো রিসেপ তায়্যিপ এরদোগান।

বিশ্বজুড়ে যেসব মানবিক কাজ করেন বা করেছেন, নির্যাতিত মানুষ, বিশেষ করে মুসলিমদের অধিকারের পক্ষে তার যে দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠস্বর এ জন্য বিশ্বের নানা প্রান্ত বাড়ছে তার জনপ্রিয়তা ও ভক্তের সংখ্যা। এমনই এক ভীষণ ভক্ত বাংলাদেশি আবদুল্লাহ আল হায়দার। তার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রত্যন্ত গ্রাম জলসুকলায়।

এরদোগানের এই ভক্ত তার প্রতি ভালবাসা থেকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় তসবিহ তৈরি করেছেন। ওই তসবিহটির দৈর্ঘ্য ৪৫০০ ফুট বা ১.৩ কিলোমিটার। ওজন ১৪৯ পাউন্ড বা ৬৭.৫ কিলোগ্রাম। তসবিহটি বানাতে প্রতিদিন ৫ থেকে ১০ ঘণ্টা কাজ করেছেন হায়দার। এতে তার সময় লেগেছে দুই মাস।

তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এখবর দিয়েছে। তার দাবি- এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় তসবিহ। তিনি এই তসবিহটি নিজের হাতে এরদোগানের হাতে তুলে দেয়ার জন্য সুযোগ চান।

আবেগতাড়িত হায়দার বলেন, এরদোগান মানুষকে ভালবাসেন। ঘৃণা করেন নির্যাতনকারীদের। কাজ করেন ফিলিস্তিন, কাশ্মির, মিয়ানমার, সিরিয়া ও ইয়েমেনের নির্যাতিত মানুষের জন্য। এ জন্যই আমি ভালবাসি এরদোগানকে।’

কথা বলতে বলতে চোখ ভিজে ওঠে হায়দারের। তিনি বলেন, ‘মিয়ানমারে নৃশংসতার কারণে যেসব রোহিঙ্গা মুসলিম দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন তাদের জন্য সর্বান্তকরণে কাজ করে যাচ্ছে এরদোগানের নেতৃত্বে তুরস্ক।’

এরদোগানের জন্য কেন তসবিহ? এ প্রশ্নের জবাবে হায়দার বলেন, ‘এরদোগান একজন ধার্মিক মানুষ। আর তসবিহতো আমাদেরকে আল্লাহর কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। এরদোগানের কণ্ঠে আমি পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত শুনেছি। শুনেটি তার সুমিষ্ট স্বরের আযান। এভাবেই তাকে আমি আবিষ্কার করেছি।’

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, শুধু আবদুল্লাহ আল হায়দার নয়, বাংলাদেশে এরদোগানের প্রচুর ভক্ত রয়েছেন। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যুব সমাজ তার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন। বাংলাদেশি অনেক যুবক সামাজিক যোগাযোগ মিডিয়ায় তাদের পেজে ব্যবহার করেন এরদোগানের ছবি।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech