বাজেট নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রাজশাহীর নেতাদের

  


পিএনএস ডেস্ক: সংসদে প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন রাজশাহীর রাজনৈতিক দলের নেতারা।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেট জনকল্যাণ ও উন্নয়নমুখী। শিক্ষা, কৃষি ও তরুণদের জন্য যে বরাদ্দ রাখা হয়েছে, তাতে দক্ষ জনসম্পদ গড়তে ভূমিকা রাখবে।

এছাড়া প্রস্তাবিত এই বাজেটে গ্রাম উন্নয়ন ও সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ের আওতা ও বরাদ্দ বাড়ানোর ফলে দারিদ্র্যতা কমবে।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী-২ (সদর) আসনের এমপি ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য সংসদে যে জাতীয় বাজেট পেশ করা হয়েছে তা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেখা স্বপ্ন পূরণে সহায়ক হবে। এই বাজেট এমন এক সময় এলো যখন আগামী বছরই বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে নিয়ে একটা স্বপ্ন দেখেছিলেন। এই বাজেট তা বাস্তবায়নে সহায়ক হবে।

তবে বাজেটে কিছু বিষয়ে অস্পষ্টতা আছে বলেও মনে করেন ফজলে হোসেন বাদশা।

তিনি বলেন, ‘বাজেটে বিভিন্ন সংকট সমাধানে সুনির্দিষ্ট ব্যাখার অনুপস্থিতি আছে। যেমন এবার কৃষকের ধান নিয়ে বড় সংকট দেখা দেয়। এই সংকট কীভাবে সমাধান হবে বাজেটে তা পরিষ্কার করা হয়নি।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক এমপি মিজানুর রহমান মিনু বলেন, বাজেট দেওয়ার নৈতিক অধিকার এই সরকারের নেই। এ কারণেই তারা ধনীদের আরও ধনী করার বাজেট দিয়েছে। ঘাটতি মেটাতে ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়া হবে। এভাবে ব্যাংকগুলোকে দেউলিয়া করে দেওয়া হচ্ছে। বাজেটে গরীবের জন্য কিছু নেই।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech