গুজবেই গজব!

  

পিএনএস (আহমেদ জামিল) : গুজবে গজব দেশের ইতিহাসে নতুন কিছু নয়।যে কোনো মিথ্যা তথ্য যখন সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে তা দেশের জন্য মহামারিতে রূপ নেয়। মহামারিটাই একটা গজব।

বাংলাদেশে সেতু নির্মাণ বা এরকম বড় কোন স্থাপনা নির্মাণ কাজে মাথা লাগবে গুজব নতুন নয়। ঐতিহাসিক পটভূমি এবং গ্রামাঞ্চলের মানুষের চিন্তাধারা পর্যবেক্ষণ করলেই এর কারণ বোঝা সম্ভব।

নওগাঁ, টাঙ্গাইল, কুমিল্লা ও লালমনিরহাটে ছেলেধরা সন্দেহে ১৩ জন গণপিটুনির শিকার হয়েছেন।সন্তানকে স্কুলে ভর্তি করানোর খবর জানতে গিয়ে তাসলিমা বেগম রেনু নামক মহিলাসহ দেশে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে প্রাণ হারিয়েছেন আরো দুই জন সাধারণ মানুষ।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের রহিমপুর ইউনিয়নের দেউরাছড়ায় এক যুবককে আটক করে উত্তেজিত জনগণ মারধর করে। পরে সদর হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়।" একই সন্দেহে আরেকটি হত্যার ঘটনার খবর মেলে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে। সেখানেও এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

এসব গুজবে আরও ঘি ঢালে নেত্রকোনায় এক যুবকের ব্যাগ থেকে এক শিশুর কাটা মাথা উদ্ধারের ঘটনায়।ব্রিজ তৈরি করতে পিলারের নিচে মানুষের মাথা দিতে হবে - আবহমান কাল থেকে মানুষের মধ্যে প্রচলিত এই কুসংস্কার নিয়ে বাংলা সাহিত্যে বেশকিছু গল্পও রয়েছে।

বিজ্ঞজনেরা মনে করেন, গুজবকে কাজে লাগাতে সবসময় কিছু অপরাজনীতি ততপর থাকে। সাধরণ মানুষের ‘সরল’ বিশ্বাকে কাজে লাগিয়ে একটি অপরাজনীতির চেষ্টা দেখা যায়। এই গুজবের সময় দেশের মানুষকে যত দ্রুত সম্ভব প্রশাসন এবং মিডিয়ার মাধ্যমে জনসচেতনতা করলে গুজবের গজব থেকে কিছুটা রক্ষা পাওয়া যেতে পারে।

তবে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ এই গুজবের সময় শিশু পাচারকারীদের দিকে নজর রাখা প্রয়োজন। পারিবারিক শত্রুতা, হিংসা , সামাজিক শত্রুতা থেকে অনেক সময় গুজবের ফাঁয়দা নেওয়ার চেষ্টা করেন অনেকে। এদিকেও সমাজের প্রতিটি সচেতন নাগরিকের লক্ষ রাখা প্রয়োজন।

"কথিত আছে, ১৫৮০ সালের দিকে মৌলভীবাজারে কমলার দীঘি তৈরি করার সময় দীঘিতে যখন পানি উঠছিল না, তখন রাজা স্বপ্ন দেখেন যে তার স্ত্রী দীঘিতে আত্মবিসর্জন দিলে পানি উঠবে এবং পরবর্তীতে রাজার স্ত্রী আত্মাহুতি দেয়ার ফলেই ঐ দীঘিতে পানি ওঠে।" দিনাজপুরের রামসাগর তৈরিতেও একই ধরণের কিংবদন্তী প্রচলিত রয়েছে।যদিও প্রামাণিক দলিল বা সুনিশ্চিত ঐতিহাসিক প্রমাণ না থাকলেও শত শত বছর ধরে মানুষের মুখে মুখে চলে আসার কারণে সাধারণ মানুষের মধ্যে এধরণের গল্পের একটা গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হয়।"

সম্প্রতি পদ্মা সেতু নির্মাণে মানুষের মাথা লাগছে- এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ার পর এ ধরণের গণপিটুনির ঘটনা শুরু হয়।গণপিটুনি ঠেকানোর একমাত্র পথ হচ্ছে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech