‘খুনিরা ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে দিতে চেয়েছিল’

  

পিএনএস ডেস্ক: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা বিরোধীরাই ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে খুনের নেপথ্যে কারিগর হিসেবে ভূমিকা রেখেছে। এই খুনিরাই বঙ্গবন্ধু-পরবর্তী রাজনীতিতে ভূমিকা রেখেছে এবং ক্ষমতায় এসেছে। এক সময় এই খুনিরাই জোট বেঁধে ক্ষমতা কুক্ষিগত করে আমাদের স্বাধীনতার ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলতে ষড়যন্ত্র শুরু করেছিল।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এই খুনিদের দোসর বিএনপি-জামায়াত জোট ইতিহাস থেকে একসময় বাংলাদেশের পতাকা, জাতীয় সঙ্গীত পরিবর্তন করে ফেলতে চেয়েছিল কিন্তু তারা সেটা করতে পারেনি।

তিনি বলেন, যতদিন বঙ্গবন্ধুকন্যা জীবিত থাকবেন, ততদিন আর কোনো স্বাধীনতাবিরোধী চক্র বাংলাদেশের মাটিতে আমাদের স্বাধীনতা নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে পারবে না।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম, কমিউনিটি ক্লিনিক সহায়তা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও সরকারের সাবেক স্বাস্থ্য উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক ডা. সুলতানা, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আরসালান, মহাসচিব অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ প্রমুখ।

১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকাল সাড়ে ৮টায় স্বাস্থ্য অধিদফতরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে অধিদফতরের মহাপরিচালকের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরবর্তীতে সকাল ১০টায় ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও দুপুর ১২টায় বনানী কবরস্থানে বঙ্গবন্ধুর পরিবারের নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

পিএনএস/ হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech