সংসদে মন্ত্রী : গেজেটভুক্ত শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ৫ হাজার ৭৯৫ জন

  

পিএনএস ডেস্ক : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, দেশে খেতাবপ্রাপ্ত নারী মুক্তি যোদ্ধার সংখ্যা ২জন। তবে গেজেটভূক্ত নারী মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ৩২২ জন। বৃহষ্পতিবার জাতীয় সংসদে দিদারুল আলমের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

রত্না আহমেদের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে ৯ মাসব্যাপী স্বাধীনতা যুদ্ধে সারা দেশে ৩০ লাখ গণশহীদদের চিহ্নিত করা এখনো সম্ভব হয়নি। ভবিষ্যতে এ লক্ষ্যে সরকার কার্যক্রম গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সকল বীর মুক্তিযোদ্ধার তথ্য সংগ্রহ করে ডাটাবেইজ তৈরি করে বর্তমানে মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এ তালিকার বাইরে যদি কোন মুক্তিযোদ্ধা থেকে থাকেন তা চিহ্নিত করার কাজ চলছে। এটি সম্পন্ন হলে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকা প্রকাশ সম্ভব হবে।

মন্ত্রী বলেন, এ তালিকা অনুযায়ী বর্তমানে মোট ৫ হাজার ৭৯৫ জন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নাম ঠিকানা সম্বলিত পূর্ণাঙ্গ তথ্য ওয়েবসাইটে রয়েছে। এরমধ্যে গেজেটভুক্ত বেসামরিক শহীদ ২ হাজার ৯২২ জন, স্বশস্ত্র বাহিনীর শহীদ ১ হাজার ৬২৮, বিজিবির শহীদ ৮৩২ জন এবং পুলিশের শহীদ ৪১৩জন।

মাহফুজুর রহমানের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও অন্যান্য বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধিস্থল সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্পে ৪৬১ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ২০ হাজার সমাধিস্থল সংরক্ষণ ও উন্নয়ন করা হবে।

তিনি বলেন, ৪৪২ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে সারা দেশে ২৮১ টি বধ্যভূমি সংরক্ষণ ও উন্নয়ন করা হবে।

গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের এক প্রশ্নের জবাবে আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, সর্বশেষ গেজেটর্ভুক্ত তালিকা অনুযায়ী দেশে মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ২ লাখ ৩৫ হাজার ৪৬৭ জন। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৪৫২৪৫ জন, চট্টগ্রামে ৩৪৩৭৪জন, ময়মনসিংহে ১২৯০৭ জন, খুলনায় ২৭৫৮২ জন, রাজশাহীতে ১৯৩৭০ জন, রংপুরে ১৬৩৬৮ জন, সিলেটে ১২৭২৭ জন এবং বরিশালে ১৫৩০২ জন। আর অন্যান্য গেজেটর্ভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা ৫১৫৯২ জন। এসব মুক্তিযোদ্ধাদের অচিরেই দেশব্যাপী একদিনে একযোগে ডিজিটাল সনদ প্রদান করা হবে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech