পেট্রল পাম্পের ধর্মঘট ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থগিত

  

পিএনএস ডেস্ক:দেশের তিন বিভাগের ২৬ জেলায় চলা পেট্রল পাম্পের ধর্মঘট আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ ধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে।

পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসেসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে জ্বালানি তেল আমদানি ও সরবরাহকারী রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন-বিপিসির সমঝোতা বৈঠকের পর ধর্মঘট স্থগিত ঘোষণা করা হয়।

সোমবার (০২ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় কারওয়ানবাজারে বিপিসির লিয়াজোঁ কার্যালয়ে কোম্পানির পরিচালক (বিপণন) সৈয়দ মেহদী হাসানের সভাপতিত্বে এই বৈঠক হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে কথা বলেন মহাসচিব সাজ্জাদুল করিম আর বিপিসির পক্ষ থেকে কথা বলেছেন বিপণন পরিচালক সৈয়দ মেহেদি হাসান।

আগামী ১৫ ডিসেম্বর জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে পেট্রোল পাম্প মালিক-কর্মচারীদের দাবির বিষয়ে বৈঠকের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এছাড়া পেট্রোল পাম্প মালিকদের দাবি-দাওয়া নিয়ে জ্বালানি বিভাগে বৈঠক হবে বলেও জানানো হয়।

পনেরো দফা দাবিতে রবিবার সকাল ৬টা থেকে রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করে পেট্রোল পাম্প মালিক-কর্মচারীরা। এ সময় পাম্প থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন, বিতরণ ও পরিবহন রাখা হয়।

এতে রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা এই তিন বিভাগের প্রায় এক হাজার ৩০০ পেট্রলপাম্প একযোগে বন্ধ রাখা হয়েছিল। সেইসঙ্গে ডিপো থেকে তেল উত্তোলনও বন্ধ ছিল। ধর্মঘটের কারণে স্বল্প ও দূরপাল্লার যানবাহন নিয়ে বেকায়দায় পড়েন চালকরা।

এর আগে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে দাবি মেনে নেওয়ার সময়সীমা বেধে দেন পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিকরা। তাদের বেধে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে দাবি মেনে না নেওয়ায় পূর্বঘোষিত এই কর্মসূচি শুরু করে পেট্রোল পাম্প মালিক-কর্মচারীরা।

জ্বালানি তেল বিক্রয়ের প্রচলিত কমিশন শতকরা সাড়ে ৭ ভাগ বৃদ্ধি, জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা কমিশন এজেন্ট নাকি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান তা সুনির্দিষ্ট করা, প্রিমিয়াম পরিশোধ সাপেক্ষে ট্যাংকলরি শ্রমিকদের ৫ লাখ টাকা দুর্ঘটনা বিমা প্রথা প্রণয়ন করা, ট্যাংকলরির ভাড়া বৃদ্ধিসহ ১৫ দফা দাবিতে গত মঙ্গলবার বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিকর।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech