ঢাকায় দেনা শোধ করতে না পেরে ধর্ষকের হাতে মেয়েকে তুলে দিলো বাবা

  

পিএনএস ডেস্ক : দেনা শোধ করতে না পেরে নিজের ১৩ বছর বয়সী মেয়েকে পাওনাদার ধর্ষকের হাতে তুলে দিয়েছে এক বাবা। দীর্ঘদিন ধরে ওই পাওনাদার মেয়েটিকে ধর্ষণের এ প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো তারই বাবার কাছে। অবশেষে বাবা রাজি হয়ে মেয়েটিকে তার কাছে তুলে দেয়। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকার কামরাঙ্গীরচর এলাকায়। এ ঘটনায় কিশোরীকে উদ্ধারের পাশাপাশি তার বাবাকেও আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ৯৯৯-এ কল পেয়ে মেয়েটিকে কামরাঙ্গীরচরের বেটারিঘাট এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

কামরাঙ্গীরচর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মোর্শেদ আলী জানান, কামরাঙ্গীরচর বেটারিঘাট এলাকায় থাকে কিশোরীর পরিবার। তার মা বিদেশে থাকে। তার বাবা একটি মুরগীর দোকানে কাজ করে।

দোকানের মালিক আবুল (৩৫) কিশোরীর বাবার কাছে ৬ হাজার টাকা পায়। সেই টাকা দিতে না পারায় তার মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে চায় ওই মালিক। দীর্ঘদিন চেষ্টার পর কয়েকদিন আগে বাবার সহায়তায় কিশোরীকে ধর্ষণ করে সে।

এসআই আরও জানায়, ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পাশের বাসার এক মহিলার কাছে সব ঘটনা খুলে বলে। এরপর ওই মহিলা ৯৯৯-এ ফোন দেয়। ফোন পেয়ে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। আর ধর্ষণে সহায়তা করার জন্য তার বাবাকেও আটক করা হয়। প্রতিবেশী ওই মহিলা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন।

এদিকে ধর্ষক আবুলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন