কানার হাতে কুড়াল দিচ্ছে না তো ঢাকাবাসী!

  

পিএনএস (মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম প্রধান) : ঢাকা আমার ঢাকা। প্রিয় রাজধানী মহানগরী ঢাকা। একসময় ছিল যার অনেকটাই ফাঁকা। আজকের বাস্তবতায় সর্বত্রই কেমন একটা ঠাসা। যানজট, জনজট, বায়ুদূষণ, আবর্জনা এ প্রিয় শহরকে অশেষ কষ্টের ঠিকানায় পরিণত করেছে।

আমাদের ধারাবাহিক পরিকল্পনাহীনতার কারণে ঢাকার আজ করুণদশা। বিশ্বের রাজধানীর শহরগুলোর মধ্যে আমাদের রাজধানী নানা দিক দিয়ে পিছিয়ে। ময়লা-আবর্জনার ভাগাড় আর পরিবেশদূষণের দিক দিয়ে আমাদের জুড়ি নেই। দখলে-দূষণে শহরটির চেহারা অনেকটা বিবর্ণ।

যারা ঢাকাকে বাঁচাবে, পরিবেশকে সহনীয় রাখার দায়িত্ব পালন করবে; আজকে তারাই ভোট চাওয়ার নামে কী অরাজকতাই না করছে! মানুষ যাবে কোথায়? এ কারা শহরটির দায়িত্ব কাঁধে নিচ্ছেন? কারো মধ্যেই তো পরিবেশ নিয়ে ন্যূনতম ভাবনা-উদ্বিগ্ন হওয়ার লক্ষণ চোখে পড়ছে না।

ঢাকা ছেয়ে গেছে পোস্টারে পোস্টারে। যেগুলোর অধিকাংশই আবার পলিথিন মোড়ানো। যে পলিথিন পরিবেশের যারপরনাই ক্ষতি করছে। যারা দায়িত্ব নিয়ে পরিবেশ রক্ষায় পলিথিনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবেন, তারাই কিনা পলিথিনকে সম্বল করে ভোটযুদ্ধে অবতীর্ণ!

রাজধানী ঢাকার প্রতিটি সড়ক, অলি-গলি ছেয়ে গেছে পোস্টারে পোস্টারে। এত পোস্টার আর কখনো দেখা যায়নি। কেউ কেউ পোস্টার লাগাতে গিয়ে এক ইঞ্চি জায়গায়ও খালি রাখেনি। আগে কিন্তু ফাঁক ফাঁক রেখে পোস্টার লাগানো হতো। এবার কিন্তু তেমনটা চোখে পড়ছে না।

এভাবে পোস্টারের অবাধ ছড়াছড়ি একদিকে যেমন পরিবেশের ক্ষতি করছে তেমনি আবর্জনার জন্ম দিচ্ছে। অর্থাৎ শহরটির নান্দনিকতা নষ্ট করছে। প্রচার-প্রচারণায় উচ্চ শব্দের মাইকের অবাধ ব্যবহার জনজীবনকে বিষিয়ে তুলছে। সঙ্গে অবাধে ঘটাচ্ছে শব্দদূষণ।

সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রচারণার নামে মাইকে বিকট শব্দে গান-বাজনা ও প্রার্থীর গুণকীত্তন চলে। এটা আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের ক্ষতির কারণ হচ্ছে। প্রায়ই ছোট ট্রাক ও পিকাপে চলে বিকট শব্দের বাজনা। এসব যেন দায়িত্বশীলদের চোখে পড়ছে না।

পলিথিনে পোস্টার, পোস্টারের আধিক্য, মাইকের উচ্চ শব্দ, প্রচারণার ফাঁকে ফাঁকে সাউন্ডবক্স থেকে বেরিয়ে আসা বিকট আওয়াজ পথচারী ও বাসাবাড়িতে থাকা মানুষের বিরক্তির কারণ হচ্ছে। পাশাপাশি এগুলো পরিবেশের ক্ষতিও করছে।

ঢাকাকে বাসযোগ্য করতে, সবুজায়ন ফিরিয়ে আনতে; বায়ুদূষণ কমাতে যারা নগরটির দায়িত্ব নেবেন, দিন যত যাচ্ছে এ ব্যাপারে তাদের অজ্ঞতা ততই ফুটে উঠছে। এসব দেখে সচেতন নগরবাসী চিন্তিত, এই কার হাতে যাচ্ছে নগরের দায়িত্ব? কানার হাতে কুড়াল পড়ছে না তো!


প্রতিবেদক : বিশেষ প্রতিনিধি- পিএনএস

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech