‘স্বাস্থ্যখাতের ১৯৩৩টি টিম কাজ করছে আম্ফান মোকাবেলায়’

  

পিএনএস : ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবেলায় স্বাস্থ্যখাতের ১৯৩৩টি টিম কাজ করছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গঠিত স্বাস্থ্য মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক এবং স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন অনুবিভাগ) মো. হাবিবুর রহমান খান। তিনি বলেন, এগুলোর মধ্যে চট্টগ্রামে ১২১২টি, খুলনায় ৩০৩টি ও বরিশালে ৪১৮টি স্বাস্থ্য টিম রয়েছে। এই টিমগুলো আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া ১৪ থেকে ২০ লাখ মানুষের ওষুধ সরবরাহসহ জরুরি স্বাস্থ্য সেবায় কাজ করবে।

আজ বুধবার (২০ মে) দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্য মিডিয়া সেলের সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

ব্রিফিংয়ের শুরুতে হাবিবুর রহমান বলেন, মিডিয়া সেলের মাধ্যমে স্বাস্থ্যখাতের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি ও সঠিক আপডেট তথ্য মানুষর কাছে নিয়মিত পৌঁছে দেবার জন্যই এই মিডিয়া সেল গঠন করা হয়েছে এবং সেভাবেই সেল কাজ করছে।

বর্তমান সমসাময়িক স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সর্বাধিক আলোচিত বিষয়গুলো তুলে ধরেন সেলের আহ্বায়ক জানান, তামাক ও তামাক সংক্রান্ত শিল্প সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা সংক্রান্ত কিছু প্রিন্ট ও অনলাইন সংবাদ পরিবেশন হচ্ছে। এক্ষেত্রে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কোভিড-১৯ উপলক্ষে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কিছু নির্দেশনা ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের কিছু নির্দেশনার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে কিছু সুপারিশ করা হয়েছে বলে অতিরিক্ত সচিব মো. হাবিবুর রহমান খান জানান।

প্লাজমা থেরাপি ও আমেরিকার ওষুধ রেমডিসিভির সংক্রান্ত বিষয়ে মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জানান, প্লাজমা থেরাপি বর্তমানে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে রয়েছে। প্রাথমিকভাবে এই থেরাপি ৪৫ জনের দেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে। আর রেমডিসিভির ওষুধ দেশের উৎপাদন শুরু করা হয়েছে।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২১ মে) মন্ত্রণালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নিকট বেক্সিমকো ফার্মা কিছু রেমডিসিভির ঔষধ জমা দেবে বলেও জানান হাবিবুর রহমান খান।

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে ঢাকায় ১৪টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল কোভিড-১৯ হিসেবে ডেডিকেটেড করা হয়েছে। এর পাশাপাশি বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে ২ হাজার শয্যার ডেডিকেটেড অস্থায়ী হাসপাতালটিও এখন আমাদের হাতে নেওয়া হয়েছে। ঢাকা শহর ও বাইরের সব মিলিয়ে বর্তমানে দেশে অন্তত ১১০টির মতো কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নির্দেশে দেশে টেস্টিং সুবিধা দিনদিন বৃদ্ধি করা হচ্ছে জানিয়ে মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক বলেন, প্রথমে ১টি ল্যাব থেকে বৃদ্ধি করে বর্তমানে ৪২টি ল্যাবে দৈনিক বর্তমানে প্রায় ১০ হাজার পরীক্ষা হচ্ছে।

মিডিয়া সেলের সদস্য-সচিব ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. মাইদুল ইসলাম প্রধানের সঞ্চালনায় ব্রিফিংয়ে আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্বস্বাস্থ্য) ও মিডিয়া সেলের সদস্য রীনা পারভীন, যুগ্মসচিব (জনস্বাস্থ্য) ও মিডিয়া সেলের সদস্য নিলুফার নাজনীন, এইচআর শাখার উপসচিব ও মিডিয়া সেলের সদস্য মো. ছরোয়ার হোসেন, সিস্টেম অ্যানালিস্ট ও মিডিয়া সেলের সদস্য আহমেদ লতিফুল হোসেন।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন