করোনায় মারা গেলেন চট্টগ্রাম নগর যুবদল সভাপতির বাবা

  

পিএনএস ডেস্ক : করোনার সঙ্গে যুদ্ধ করে হার মেনে না ফেরার দেশে চলে গেলেন জাতীয়তাবাদী যুবদল কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দীপ্তির বাবা হাবিবুর রহমান (ইন্নালিল্লাহে…রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।

সোমবার (১ জুন) সকাল পৌনে ৮টায় নগরীর আকবরশাহ হাউজিং এলাকায় নিজ বাসভবনে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। নগর যুবদল সহ সভাপতি শাহেদ আকবর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, হাবিব উল্লাহ বেশ কয়েক বছর যাবত অসুস্থ। তিনি ভারত থেকেও চিকিৎসা গ্রহণ করেছিলেন। রমজানের শেষ দিকে তাকে চট্টগ্রাম মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করানো হয়েছিল।

পাশের সিটের রোগীর করোনা পজিটিভ আসায় তারও করোনা নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ২৩ মে তার রিপোর্ট পজিটিভ আসলে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দিয়ে দেওয়া হয়। চট্টগ্রামের করোনা চিকিৎসার কোন হাসপাতালের আইসিইউ খালি না থাকায় বাসায় তার চিকিৎসা চলছিল।

মোশাররফ হোসেন দীপ্তি জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আইসিউ সাপোর্ট প্রদানে অপরাগতা জানালে তারা বাবার বাঁচা-মরা আল্লাহর উপর ছেড়ে দেন। গত তিনদিন ধরে তার বাবার অবস্থা আরও খারাপ হয়। বাবার দেখভাল করতে গিয়ে মোশাররফ হোসেন দীপ্তি নিজেও করোনা-আক্রান্ত হন। তিনি আইসোলেশনে ছিলেন করোনা ফিল্ড হাসপাতালে।

সোমবার তার দ্বিতীয় টেস্টের নমুনা নেওয়ার কথা ছিল। পিতার মৃত্যুতে মরদেহ নিয়ে দীপ্তি নোয়াখালীর গ্রামে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছেন। নোয়াখালী রওয়ানা দেওয়ার পূর্বে আকবরশাহ এলাকায় প্রথম জানাযা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নোয়াখালীতে দ্বিতীয় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

মোশাররফ হোসেন দীপ্তির পিতার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সাবেক মন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল নোমান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মীর মো. নাছির উদ্দিন, নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম নিরব এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, নগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহেদসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন