ফাঁকা ঢাকা এখন আরো ফাঁকা

  

পিএনএস ডেস্ক : করোনার কারণে এমনিতেই ঢাকা আগের চেয়ে নীরব। নেই আগের মতো কোথাও ভিড়। ঈদের আগে নেই মার্কেটে কেনাকাটার ভিড়। নেই বাসস্ট্যান্ড, ট্রেন স্টেশন, লঞ্চঘাটে বাড়ি ফেরা মানুষের তাড়া। এবারের ঈদ তাই একেবারে অন্যরকম। ঢাকায় নেই যানজট, যান্ত্রিক শব্দ, রাস্তাঘাটে মানুষের উপচেপড়া ভিড়। যানবাহন কম চলাচল করায় কমে গেছে শব্দ ও বায়ু দূষণ।

কিন্তু এবার সেই ঢাকা আরো ফাঁকা। গত ২ মাস কর্ম ও শ্রমজীবী মানুষ ছাড়া সাধারণ মানুষের সংখ্যা সীমিত ছিল। এই কর্ম ও শ্রমজীবী মানুষও ঈদুল আজহায় পরিবারের সঙ্গে থাকতে রওনা দিয়েছেন বাড়ির মুখে। ফলে ফাঁকা রাজধানী আরো ফাঁকা হচ্ছে।

আগের বছরগুলোতে সপ্তাহব্যাপী ঘরমুখো মানুষের ভিড় থাকলেও এবার ছিল উল্টোচিত্র। তবে শেষদিনে মহাসড়কগুলোতে ঘরে ফেরা মানুষের ঢল নেমেছে। নগরী রাজধানী ঢাকা ছেড়ে নাড়ির টানে গ্রামে ফিরছে মানুষ।

ঢাকার বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড (মহাখালী, গাবতলী, গুলিস্তান ও সায়েদাবাদ), সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে ঈদ করতে ঘরে ফেরা মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। ফলে রাজধানীর ব্যস্ত সড়ক ক্রমেই ফাঁকা হচ্ছে।

আজ শুক্রবার সকালে ফার্মগেটে দেখা যায় চিরচেনা বাসে উঠার জন্য যাত্রীদের ভিড়ের চিরচেনা সেই দৃশ্যটি নেই। শত শত মানুষ দাঁড়িয়ে থাকা, একটি বাস আসতে দেখলেই যাত্রীদের হুড়োহুড়ি করে ছুটে বাসে উঠার চেষ্টা করা, বাস আগে থেকে যাত্রী পরিপূর্ণ থাকায় তা দ্রুত বেগে চলে যাওয়া এ সবই অনুপস্থিত।

শাহবাগ মোড়েও ফাঁকা অবস্থা দেখা যায়। এ সময় বেশ কয়েকটি বাসের হেল্পারকে ‘এই মিরপুর, আসাদগেট, সাইন্স ল্যাবরেটরি, কলাবাগান, কল্যাণপুর, গাবতলী’ বলে চিৎকার করে প্যাসেঞ্জার ডাকাডাকি করতে দেখা যায়।

এবার ঈদের আগে তিনদিন ছুটি পাওয়ায় বৃহস্পতিবার ছিল চাকরিজীবীদের শেষ কর্মদিবস। এছাড়া ঈদের পরেও কয়েকদিন ছুটি নিয়েছেন অনেক। তাই এবার অন্যবারের তুলনায় ঢাকা আরও বেশি ফাঁকা হয়ে গেছে।

পিএনএস-জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন