মুখে গামছা গুঁজে যমজ বোনদের ধর্ষণ

  

পিএনএস ডেস্ক : রাজধানীর মুগদা এলাকায় মুখে গামছা গুঁজে ১১ বছর বয়সী স্কুলছাত্রী যমজ দুই বোনকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তাদের আপন এক মামাতো ভাইয়ের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় আজ রোববার থানায় মামলা দায়ের করছেন ভুক্তভোগীদের খালা।

ধর্ষণের শিকার কিশোরীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আজ রোববার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে ভর্তি করেছে মুগদা থানা পুলিশ। ঘটনার পর থেকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠা ফরহাদ (দুই বোনের আপন মামাতো ভাই) পলাতক রয়েছেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখিত তথ্যের বরাত দিয়ে মুগদা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ এনামুল করিম জানান, ভুক্তভোগীদের বাবা নেই। মায়ের সঙ্গে তারা মুগদা এলাকায় বসবাস করে। তারা স্থানীয় একটি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে। পাশাপাশি এলাকায় বসবাসকারী দুই বোনের মামাতো ভাই ফরহাদ মুগদা এলাকায় একটি মাছের আড়তে কাজ করেন। গত বুধবার দুপুর ১টার দিকে তিনি কৌশলে দুই বোনকে ডেকে মুগদা ব্যাংক কলোনি এলাকার একটি ভবনের তিনতলায় ফরহাদের বাসায় নিয়ে যান। সেখানে তাদের দুজনকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ও আটকে রেখে মুখে গামছা গুঁজে দিয়ে প্রথমে একজনকে ধর্ষণ করেন। পরে অন্যজনকেও একই ভাবে ধর্ষণ করেন ফরহাদ।

এসআই শেখ এনামুল করিম আরও জানান, ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য ভুক্তভোগীদের ভয় দেখান ফরহাদ। কিন্তু তারা বাসায় গিয়ে মায়ের কাছে সব বলে দেয়। এরপর ফরহাদের পরিবার পারিবারিকভাবে ঘটনাটির সমাধান করতে চায়। এর জন্য দুই দিন তারা কাউকে অভিযোগ করেনি। সর্বশেষ গত শুক্রবার ফরহাদ ও তার পরিবার পালিয়ে যাওয়ায় মামলার সিদ্ধান্ত নেন কিশোরীদের মা ও খালা। এরপর আজ রোববার থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন দুই বোনের খালা। অভিযুক্ত ফরহাদকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও এসআই এনামুল করিম জানান।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন