ভাস্কর্য ও মূর্তি নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি আছে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

  

পিএনএস ডেস্ক : ভাস্কর্য ও মূর্তি এক নয়। এ সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি আছে বলে মন্তব্য করেছেন নবনিযুক্ত ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান। তিনি বলেন, ভুল বোঝাবুঝি থাকতেই পারে। তবে আলাপ-আলোচনা করে যেকোনো সমস্যা সমাধান করা যায়।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে তৃতীয় কর্মদিবসে ‘রিলিজিয়াস রিপোর্টার্স ফোরামের (আরআরএফ)’ নেতাদের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, উস্কানিমূলক বক্তৃতা-বিবৃতির বিষয়ে সকলকে আরও সংযত হতে হবে। একই সঙ্গে ভাস্কর্য ও মূর্তির বিষয়টিকে আর আলোচনায় না নিয়ে আসার জন্য তিনি গণমাধ্যমকর্মীদের প্রতি অনুরোধ জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারের জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এছাড়া সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য সব ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিদের নিয়ে সমাজের বিভিন্ন স্তরে আন্তঃধর্মীয় সংলাপের আয়োজন করা হবে।

তিনি বলেন, আমরা ধর্ম-কর্ম যে যেটাই করি না কেন, যার যার ধর্ম তাকে পালন করার সুযোগ করে দিতে হবে। প্রত্যেক ধর্মেই বলা আছে ভালো মানুষ যেন হতে পারি, অসৎ কাজ ও অন্যায় যেন না করি, পরের যেন কোনো ক্ষতি না করি। ধর্মীয় ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ভালো মানুষ হওয়ার চেষ্টা করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে ওমরা পালনে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। সিদ্ধান্ত হলেও সীমিত আকারে ওমরা করতে যেতে পারবেন। সৌদি সরকারের সিদ্ধান্তের আগে কিছুই বলা যাচ্ছে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল হজ ব্যবস্থাপনা, হজযাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি, হয়রানিমুক্ত হজ ব্যবস্থাপনা, জেদ্দার ইমিগ্রেশন বাংলাদেশে, হজে গমন সহজ ও নিরাপদ হয়েছে। সেটি আরও গতিশীল করা হবে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতি কেন্দ্র নির্মাণ করছে জানিয়ে তিনি বলেন, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম, মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম ও প্যাগোডাভিত্তিক প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের কার্যক্রম চলমান আছে।

তিনি বলেন, হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর কল্যাণে সরকারের গৃহীত কার্যক্রম আরও বৃদ্ধি করা হবে।

জনগণের ইচ্ছা-আকাঙ্খাকে সরকারের কাছে তুলে ধরা এবং সরকারের কর্মকাণ্ড ও সেবা সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করার ক্ষেত্রে সেতু হিসেবে সাংবাদিকদের সহযোগিতা ও গঠনমূলক পরামর্শ চান প্রতিমন্ত্রী।

আরআরএফ সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ ভূঁইয়া ও সাধারণ সম্পাদক উবায়দুল্লাহ বাদলের নেতৃত্বে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ প্রতিমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

এ সময় আরআরএফ নেতৃবৃন্দের মধ্যে সহ-সভাপতি মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল, যুগ্ম-সম্পাদক মুহাম্মদ নঈমুদ্দিন, অর্থ সম্পাদক রকীবুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবলু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বাহরাম খান, কার্যনির্বাহী সদস্য শামসুল ইসলাম, মোহসিনুল করীম লেবু, সদস্য মাসুদ রানা, মাসুদুল হক এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

পিএনএস/এসআইআর


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন