সাংবাদিক মুজাক্কিরের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আল্টিমেটাম

  

পিএনএস ডেস্ক : নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির নিহতের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছেন সোনাগাজীতে কর্মরত সাংবাদিকরা। এ সময় হত্যায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানান তারা।

মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিক শেখ আবদুল হান্নানের সভাপতিত্বে সোনাগাজী জিরো পয়েন্ট শাহাজাহান কমপ্লেক্সের সামনের সড়কে ঘণ্টাব্যাপী এ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন দৈনিক দেশ রূপান্তর ফেনী প্রতিনিধি সফি উল্ল্যাহ রিপন, দৈনিক যুগান্তর সোনাগাজী প্রতিনিধি জাবেদ হোসাইন মামুন, দৈনিক প্রথম আলো সোনাগাজী প্রতিনিধি আমজাদ হোসাইন, দৈনিক সমকাল সোনাগাজী প্রতিনিধি আবুল হোসেন রিপন, দৈনিক ইনকলাব সোনাগাজী প্রতিনিধি জসিম উদ্দিন কাঞ্চন, দৈনিক ভোরের কাগজ সোনাগাজী প্রতিনিধি সৈয়দ মনির, দৈনিক আমাদের সময় সোনাগাজী প্রতিনিধি ওমর ফারুক, সাংবাদিক মোতাহের হোসেন ইমরান, হাবিবুল ইসলাম রিয়াদ, গাজী হানিফ, সহিদুল ইসলাম।

উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক এন আফছার সোহাগ, মো. সালাহ উদ্দিন, আবদুল্লা রিয়েল, ইকবাল হোসাইন, শরীয়ত উল্ল্যাহ রিফাত, বাহার উল্যার বাহার, নজরুল ইসলাম, ইয়াছিন আরাফাত তুহিন, মো. গিয়াস উদ্দিন মামুন, আবদুর রহিম রুবেল।

২৪ ঘণ্টার মধ্যে সাংবাদিক মুজাক্কিরের খুনিদের গ্রেপ্তারে প্রশাসনকে আলটিমেটাম দেন বক্তারা। এতে প্রশাসন ব্যর্থ হলে কলম বিরতিসহ বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন তারা।

শুক্রবার বিকালে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে সংবাদ সংগ্রহের সময় গুলিবিদ্ধ হন সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির। শনিবার রাত ১০টা ৪৫মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

নিহত মুজাক্কির দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও অনলাইন পোর্টাল বার্তা বাজারের প্রতিনিধি ছিলেন। তিনি উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের নোয়াব আলী মাস্টারের ছেলে। নোয়াখালী সরকারি কলেজ থেকে সম্প্রতি রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স শেষ করে সাংবাদিকতায় যুক্ত হন তিনি।

পিএনএস/এসআইআর

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন