কপিরাইট হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ

  

পিএনএস ডেস্ক:আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। ১৯৭১ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যুগান্তকারী ভাষণের স্মারক হিসেবে দিনটি অবিস্মরণীয় হয়ে আছে।

১৯৭১ সালের এই দিনে তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানের (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) বিশাল জনসমাবেশে দেওয়া ওই ভাষণে বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতাযুদ্ধের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন। বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’

২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ইউনেস্কো ভাষণটিকে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। ৭ মার্চের ভাষণটি বেশি জনপ্রিয় হলেও বঙ্গবন্ধুর অন্য ভাষণগুলোর প্রতিও মানুষের আগ্রহ রয়েছে। ইউটিউব, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও নানা গবেষণা গ্রন্থে ভাষণগুলো আদরণীয় হয়ে উঠছে। কোনো কোনো ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান কালজয়ী ভাষণগুলো আপলোড করে অর্থও কামাচ্ছে দেদার। পশ্চিমবঙ্গের ইনরেকো ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি প্রতিষ্ঠান ৭ মার্চের ভাষণ আপলোড করে নিজস্ব সম্পত্তি দাবি করায় প্রতিবাদের পাশাপাশি সতর্ক হয়েছে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট। ইতোমধ্যে ট্রাস্টের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর সব ভাষণ কপিরাইট অফিসে রেজিস্ট্রেশন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ গণমাধ্যমে বলেন, ‘আমরা বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণসহ গুরুত্বপূর্ণ ভাষণগুলোর কপিরাইট করার বিষয়ে কাজ করছি। আমাদের কপিরাইট অফিস এ বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছে। তবে আমরা জাতির পিতার ভাষণগুলোর কপিরাইট করে সঠিকভাবে সংরক্ষণ করবো। যাতে নতুন প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানতে পারে। ‘

বাংলাদেশ কপিরাইট অফিসের রেজিস্ট্রার জাফর রাজা চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের কপিরাইট আরও আগে হওয়া দরকার ছিল। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের সত্বাধিকারী তার পরিবার অথবা পরিবারের অনুমতিতে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট হতে পারে।

তিনি বলেন, কপিরাইট করা না হলে, ভাষণের ভুল উপস্থাপনের জন্যও কিন্তু কপিরাইট আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া যায় না।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন