নির্বাচনে অংশ নিতে চায় বিএনপি, বললেন মির্জা ফখরুল

  

পিএনএস, ডেস্ক: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, 'আমরা তো নির্বাচনে অংশ নিতে চাই। কারণ আমরা বিশ্বাস করি, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমেই জনগণের প্রতিনিধিত্বশীল সরকার প্রতিষ্ঠা হতে পারে।'
শুক্রবার বিকালে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।
রাজনৈতিক দলগুলোকে আগামী নির্বাচনের অংশগ্রহণের আহ্বান জানিয়ে জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়ার ভাষণের পর এ সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি।
ফখরুল বলেন,পরবর্তী জাতীয় সংসদ নির্বাচন পদ্ধতি রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করতে হবে।এবং সরকারের প্রতি তিনি এই আলোচনার আহ্বান জনান।
তিনি বলেন, 'এজন্য বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতির কারণে নির্বাচনকালীন সময়ে নিরপেক্ষ একটি সহায়ক সরকারের অধীনে একটি নিরপেক্ষ, সাহসী, যোগ্য নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় সকল দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি নির্বাচন চাই।'
মির্জা ফখরুল বলেন, 'নির্বাচনের আগে বিরোধী দল নির্মূলের পথ পরিহার করতে হবে। সকল রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে মুক্তি দিতে হবে। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। সভা, মিছিল, সমাবেশ করার সমান সুযোগ দিতে হবে। গণমাধ্যমকে স্বাধীনতা দিতে হবে। এক কথায়, একটি প্রকৃত গণতান্ত্রিক পরিবেশ, রাজনীতিকে তার স্বাভাবিক চলার পথে চলতে দিতে হবে।'
তিনি আর ও বলেন, 'আমরা এখনও আশা করি, প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র ধ্বংস করার একদলীয় শাসন প্রবর্তণের ভয়ংকর রাস্তা থেকে সরে গিয়ে গণতন্ত্রের মুক্ত পথে চলবেন। বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে আগামী নির্বাচন এবং রাজনীতির গতিপথ নির্ধারণ করবেন। নতুন আশার আলো দেখাবেন। অন্যথায় জনগণের কাছে তাকে জবাবদিহি করতে হবে।'
প্রধানমন্ত্রী জাতিকে ভ্রান্ত তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে এমন ভাবে চিত্রায়িত করেছেন যে সকল উন্নয়ন তার দুই দফার সরকারের আট বছসরেই হয়েছে। এটা সঠিক নয়। অর্থনৈতিক উন্নয়ন একটি চলমান প্রক্রিয়া।'
সরকার বাংলাদেশের অর্থনীতিকে ভেতরে ভেতরে অন্তঃসার শূন্য করে ফেলেছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'শুধু গার্মেন্ট সেক্টরের আয় ও রেমিন্টেন্সের কারণে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়লেই অর্থনীতি চাঙ্গা হয় না।'
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতাদের মধ্যে ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech