সুযোগ থাকলে প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে মামলা করব: নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী

  

পিএনএস ডেস্ক:সুযোগ থাকলে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন ১৪ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী এমপি। তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতি শপথ ভঙ করেছেন। এসময় তিনি প্রধান বিচারপতিকে ক্ষমা প্রার্থনাপূর্বক পদত্যাগ করার আহ্বান জানান।

রোববার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী এসব কথা বলেন। ষোড়শ সংশোধনীর পর্যবেক্ষণ এর প্রতিক্রিয়া জানাতে এই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে তরিকত। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে দলের মহাসচিব এম এ আউয়াল এমপি।

নজিবুল বশর বলেন, প্রধান বিচারপতি আত্মস্বীকৃত শান্তি কমিটির সদস্য। তিনি নিজের মুখেই বলেছেন, শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি ১/১১ এর সময় মঈন-ফখরুদ্দিনের দোসর ছিলেন এবং সিঙ্গাপুরে সাকা চৌধুরীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করে শপথ ভঙ করেছেন।

নজিবুল বসর মাইজভান্ডারী সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ও এর পর্যবেক্ষণে সংক্ষুব্ধ হওয়ার কথা জানান। তিনি বলেন, এই পর্যবেক্ষণ কল্পনাপ্রসূত। এই রায় দিয়ে প্রধান বিচারপতি ৭২ এর সংবিধানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে মামলা করবেন এমন প্রশ্নের উত্তরে নজিবুল বশর বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে সুযোগ থাকলে প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে মামলা করব। আজ হোক বা কাল হোক, আমার আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।

ক্ষমতাসীন জোটের শরিক দল তরিকতের চেয়ারম্যান বলেন, আমি দায়িত্ব নিয়েই বলছি। প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগ করতে হবে। তবে এর আগে তাকে ক্ষমা চাইতে হবে।

ষোড়শ সংশোধনীর পর্যবেক্ষণে ‘সংসদকে অপরিপক্ক’ বলার বিষয়ে মাইজভান্ডারী বলেন, জানি না প্রধান বিচারপতি কোন অসন্তুষ থেকে এমন বক্তব্য দিয়েছেন। তার রায়ে আমি সংক্ষুব্ধ। প্রধান বিচারপতি তার ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করছেন বলেও অভিযোগ করেন মাইজভান্ডারী।

লিখিত বক্তব্যে তরিকতের মহাসচিব এম এ আউয়াল এমপি বলেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায়ে বঙ্গবন্ধুকে ছোট করা হয়েছে।পৃথিবীতে বহু উদাহরণ আছে, এক ব্যক্তির নেতৃত্বেই একটি জাতি গঠন হয়েছে। মুক্তিসংগ্রামের পথে এগিয়ে গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে এম এ আউয়াল জানান, চলমান বন্যা সংকটে দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে একটি ত্রাণ কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. সৈয়দ রেজাউল হক চাঁদপুরীকে আহ্বায়ক, সৈয়দ তৈয়্যবুল বশর মাইভান্ডারীকে সদস্য সচিব ও সৈয়দ আবু দাউদ মসনভী হায়দারকে সমন্বয়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি করা হয়েছে।



পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech