‘আমরাও তো জাতীয়, আমরা কি বিজাতি’

  

পিএনএস ডেস্ক: নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বিভিন্ন দলের ভিন্ন ভিন্ন দাবি সুরাহার জন্য জাতীয় সংলাপ দরকার কি না -এমন প্রশ্নের জবাবে জাতীয় পার্টির (জেপি) একাংশের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন, ‘আমরাও তো জাতীয়, আমরা কি বিজাতি।’

বৃহস্পতিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে ইসির সঙ্গে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

দলের মতামত সম্পর্কে তিনি বলেন, আমাদের দলের বক্তব্য সংবিধানের বাইরে যাবে না। আমাদের বক্তব্য বিভিন্ন গণতান্ত্রিক দেশের যেগুলো হয় তার বাইরে যাবে না। কে নির্বাচনে আসল আর কে আসল না সেই বিবেচনায় আমরা যাব না, আমরা নির্বাচনের পক্ষে। দেশে ভালো নির্বাচন হোক।

জেপি সেনা মোতায়েনের বিরোধী কি না -এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দেখেন জাতীয় পার্টি সেনা নিয়োগের বিরোধীই বা হবে কেন, পক্ষেই বা হবে কেন? সেও বাংলাদেশের মানুষ আমরা বাংলাদেশের মানুষ। সেনা বলে কোনো ভিন্ন জাতি না গোষ্ঠি নেই।

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আপনারা কী কী প্রস্তাব দিয়েছেন? সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তিনি বলেন- ‘অনেক অনেক মত বিনিময় করেছি।

নির্বাচন কীভাবে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করা যায়, কতগুলো রাজনৈতিক দল আছে তাদের সবাই সুষ্ঠু নির্বাচন চান। তবে কীভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হবে সেই সম্পর্কে এদিক সেদিক আছে। আমরা আশা প্রকাশ করে এসেছি এই আলাপ আলোচনার মাধ্যমে এগুলো সুরাহা হবে।

কমিশনে সুনির্দিষ্ট কোনো প্রস্তাবনা দিয়েছেন কি না জানতে চাইলে বলেন, আমরা মুখে মুখে দিয়েছি। আমরা কোনো বার্গেডিং এজেন্ট নই এবং আমরা মালিকের কাছে আসিনি। আমরা মত বিনিময় করেছি। সেনা মোতায়েন, সহায়ক সরকার, সংসদ ভেঙে দেয়া এসব আলোচনা হয়েছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মঞ্জু বলেন, ‘বইলেন আমরা চা খেতে এসেছিলাম মাত্র।’ এ পর্যায়ে সাংবাদিকরা বলেন, আমরা তো কিছুই পেলাম না। নিউজ করতে পারব না। এরপর দলের মহাসচিব শেখ শহিদুল ইসলাম রেগে গিয়ে বলেন, ‘আপনি কি থ্রেট করতেছেন নাকি? নিউজ কইরেন না।’

এরপর তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টি (জেপি) একটি অর্থবহ অন্তর্ভুক্তিমূলক নির্বাচন চায়। সেই নির্বাচনে যেন জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটে। তবে রাজনৈতিক দলের একটি বা দুটি অংশ না নিলে নির্বাচন অর্থবহ হবে না, তা নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বলেছি প্রয়োজন হলে সেনা মোতায়েন করতে পারে ইসি। এই সিদ্ধান্ত ইসি গ্রহণ করবে। সহায়ক সরকার বা অন্যান্য বিষয়গুলো নিয়ে যে কথাবার্তা হয় সেই বিষয়গুলো নিয়ে ইসির কোনো কিছু করার নেই। তাই এগুলো নিয়ে ইসিতে কথা বলেনি।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনা কে এম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে জেপির পক্ষ থেকে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি অংশ নেন।

উল্লেখ্য, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে অংশীজনদের সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছে ইসি। এরই ধারবাহিকতায় আজ এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এখন পর্যন্ত ৩৯টি দলের সঙ্গে বৈঠক করলো ইসি।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech