রিমান্ড শেষে কারাগারে ছাত্রী সংস্থার ২০ কর্মী

  

পিএনএস ডেস্ক: বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় ইসলামী ছাত্রী সংস্থার সদস্য সন্দেহে গ্রেপ্তারকৃত ২০ কর্মী রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করলে বিচারক তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে গত ১৯ অক্টোবর ঢাকার কদমতলী থানা পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করে। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কদমতলী থানার এসআই মো.আজহারুল ইসলাম তাদের পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে মহানগার হাকিম মো. গোলাম নবীর আদালতে হাজির করেন। সেদিন আদালতে প্রত্যেকের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ড শেষে শনিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কদমতলী থানার এসআই মো. আজহারুল ইসলাম তাদেরকে আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আসামিপক্ষে জামিন দেয়ার জন্য আবেদন করেন।

ঢাকার মহানগর হাকিম এ কে এম মইন উদ্দিন সিদ্দিকী উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে জামিনের আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো হয়েছে- জহুরা খাতুন শিমু (২৬), নূরই হাফসা শান্তা (২৬), মাইমুনা সুলতানা (২২), সুমাইয়া খাতুন (২৪), মাসুদা খাতুন (২৩), তাহমিনা আক্তার (২১), মাজিয়া বিনতে ফয়েজ (১৯), শারমিন আক্তার (২৬), ফাতেহা (২৬), খাদিজাতুল কোবরা অর্না (১৮), রুমানা রুবাইয়া নাসরিন (২৭), সাদিয়া আক্তার মোর্শেদা (২৮), শাহানারা সাথী (২৪), সুলতানা (২৪), কামরুন নাহার (২১), ফাহমিদা (২২), তাহিরা (২২), জান্নাতুল ফৌরদৌস (২২), ফরিদা আক্তার ফাতেহা (১৯) ও ফাতেমা (১৮) কে।

আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন, অ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক, এস.এম কামাল উদ্দিনসহ বেশ কিছু আইনজীবী।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech