৭ মার্চ জনতার ঢেউ চায় আ. লীগ

  

পিএনএস ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী ৭ মার্চ ঢাকার রাজপথে জনতার ঢেউ দেখতে চায় দল। এজন্য নেতাকর্মীদেরকে দলটির প্রচারপত্র নিয়ে ঘরে ঘরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাদের বলতে বলা হয়েছে, ‘৭ মার্চ বিশ্ব স্বীকৃত। একাত্তরের ৭ মার্চের মতো জনসমাবেশ করে এই স্বীকৃতিকে আমরা সম্মান দেবো।’

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে দলীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ৭ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দলের জনসভা সফল করতে সভায় এসব নির্দেশনা দেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘প্রতিটি ঘরে ঘরে যান, পাড়ায় পাড়ায় মিটিং করুন। শেখ হাসিনার দাওয়াত, আওয়ামী লীগের দাওয়াত সবার কাছে পৌঁছে দিতে হবে। জাগরণের ঢেউ দেখিয়ে বিএনপি’র বড় বড় কথার জবাব দিতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘তৃণমূলের কর্মীরাই আওয়ামী লীগের প্রাণ। তারা আছে বলেই আওয়ামী লীগ টিকে আছে। এই কর্মীরা কখনও আপস করেনি,মাথা নত করেনি। যার প্রমাণ ১/১১। সেদিন কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ ছিল বলে মাইনাস টু ফর্মুলা’র চক্রান্ত বাস্তবায়ন হয়নি। সুসময় আমাদের জীবনে খুব বেশি সময়ের জন্য আসেনি। ক্ষমতায় থেকেও আমরা যে সুসময়ে আছি,একথা দাবি করার কোনও অবকাশ নেই। এখনও মাঝে মাঝে দুঃসময় আসে।’

তিনি বলেন, ‘দেশকে এখনও সংকটমুক্ত বলা যাবে না। এখনও ষড়যন্ত্র চলছে। তবে এসময়ে আমাদের সবচেয়ে বড় শক্তি শেখ হাসিনার উন্নয়ন-অর্জনে, তার সততা ও পরিশ্রমী কর্মঠ নেতৃত্বে এতটাই খুশি যে, সারাদেশের মানুষ এখন ঐক্যবদ্ধ। যে কারণে জঙ্গিবাদী শক্তি অনেকটাই নিষ্ক্রিয়। আমাদের পুলিশ, র্যাব ও সেনাবাহিনীর প্রতিরোধের মুখে তারা নিয়ন্ত্রিত ও দুর্বল। কিন্তু তারা তাদের পথ থেকে সরে যায়নি।’

বিএনপির শান্তিপূর্ণ আন্দোলন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘‘আমার কাছে প্রতি মুহূর্তেই মনে হয়, আজকের জঙ্গিবাদী শক্তি তলে তলে আরও ভয়াবহ আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছে কিনা, এটা ভাবতে হবে। আমাদের রাজনীতিবিরোধী শক্তি তাদেরই বন্ধু ও দোসর। তারা আজ বাংলাদেশের আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে। এটা কোনও ইতিহাসে নেই। বিচার বিভাগের রায়কে কেন্দ্র করে যেভাবে তারা তাণ্ডব চালাচ্ছে, যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের দূতাবাস ভাঙচুর করেছে। তারাই হাইকোর্টের সামনে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়েছে। তারা যখন বলে— ‘আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি’। এটা কি বিশ্বাস হয়?’’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরাও সতর্ক ও রাজনৈতিকভাবে সংগঠিত। আইন শৃঙ্খলাবাহিনী আগের চেয়েও তৎপর। যে কারণে এই অপশক্তি সাহস পাচ্ছে না, আগের মতো ঘটনা পুনরাবৃত্তি ঘটাবার। এজন্য কৌশল নিয়েছে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের। তারা কি শান্তি চায়? তাদের আগুন সন্ত্রাস মনে আছে?’

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech