ছাত্রলীগ কর্মীদের নিয়ে যা বলে অবাক করলেন জাকির!

  

পিএনএস (জে এ মোহন) : ছাত্রলীগের কিছু বির্তকিত কর্মকাণ্ড নিয়ে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন।
সাম্প্রতিককালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছাত্রলীগের গ্রুপিং রাজনীতির কারণে সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে সংগঠনের।নিজেদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি থেকে একে অন্যের প্রতি কাদা ছোড়াছুড়ি শুরু করেছেন বলে তিনি মনে করেন। যা মোটেও কাঙ্ক্ষিত নয়।

এই নগ্ন কাদা ছোড়াছুড়ির কারণে ক্ষতি হচ্ছে ছাত্রলীগের। এ সবের ফলে ব্যক্তির সম্মান হানির পাশাপাশি পরিবারেরও অর্জিত সম্মান ক্ষুণ্ন হচ্ছে বলে তিনি দাবী করেছেন।

পাঠকের জন্য ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেইনের লেখাটি হুবহু তুলে ধরা হলো :

‘‘মানুষ সামাজিক জীব, জন্মগতভাবে পরিবারে বসবাস করে। পরিবারের মাধ্যমে সমাজেরই একজন হয়ে মানুষ জন্ম নেয়, বেড়ে ওঠে এবং জীবনের শেষদিন পর্যন্ত সমাজবদ্ধ হয়েই বেঁচে থাকে। সমাজবদ্ধ হয়ে বসবাস করার কারণেই মানুষের পারস্পরিক সম্পর্ক সুষ্ঠু ও সুদৃঢ় হয়।

আমরাও কোনো না কোনো সমাজে বসবাস করি। আমাদের সবাইকে সামাজিক রীতি-নীতি ও আচরণ মেনে চলতে হয়। সেই সমাজেরই একটি অবিচ্ছেদ্য ‘সংগঠন’ হল পরিবার।

আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ একটি ঐক্যবদ্ধ পরিবার। যে পরিবারের প্রত্যকটি সদস্যের পরস্পরের প্রতি পূর্ণ আস্থা, ভালোবাসা ও শ্রদ্ধার সম্পর্ক রয়েছে। কারণ আমরা কাকডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হাতে হাত রেখে প্রগাঢ় বন্ধনে উচ্চকণ্ঠে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগানে একসঙ্গে পথ চলি। আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এক ও অভিন্ন। আমরা একজনের প্রয়োজনে সবাই ঝাঁপিয়ে পড়ি। আমাদের প্রত্যেকের সঙ্গে প্রত্যেকের রয়েছে গভীর আত্মিক সম্পর্ক, যে সম্পর্ক চির-অমলিন।

তবে অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, সাম্প্রতিক কালে অত্যন্ত জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লক্ষ করা যাচ্ছে যে আমাদের নিজেদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি থেকে একে অন্যের প্রতি কাদা ছোড়াছুড়ি শুরু করেছি। যা মোটেও কাঙ্ক্ষিত নয়। এই নগ্ন কাদা ছোড়াছুড়িতে যতটুকু না লাভ হচ্ছে তারচেয়ে বহুগুণ বেশি ক্ষতি হচ্ছে আমাদের নিজেদের তথা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের। এসবের ফলে ব্যক্তির সম্মান হানি তো হচ্ছেই সঙ্গে পরিবারেরও দীর্ঘদিনের অর্জিত সম্মানের হানি ঘটছে।

আমরা পরস্পর ভাই। আমরা সবাই বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কাজ করি। আমাদের মনে রাখতে হবে আমরা পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হওয়া পর্যন্ত সমাজ থেকে অন্যের শ্রদ্ধাও আশা করতে পারব না। মনে রাখবেন আপনার একটা স্ট্যাটাসের জন্য হয়তবা আপনি সাময়িকভাবে কিঞ্চিৎ লাভবান কিংবা বিকৃত মানসিক শান্তি পেতে পারেন, কিন্তু আপনার জন্য আমাদের অনেকের-ই ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক জীবন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

আপনাদের প্রতি অনুরোধ থাকবে এই সব নোংরা কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ করুন। তবে আপনাদের যদি কোনো ব্যক্তি সম্পর্কে ‘সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও যথাযথ তথ্যপ্রমাণ’ থাকে তাহলে তা যেকোন মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু কন্যা, জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সামনে উপস্থাপন করুন।

আমি শতভাগ নিশ্চিত, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একমাত্র অভিভাবক হিসেবে তিনি আপনাদের নিরাশ করবেন না। অন্তত দেশরত্ন শেখ হাসিনার উপর আস্থাটুকু রেখে আত্মঘাতি সমালোচনা থেকে সরে এসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজহাতে গড়া অতি আদরের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে শক্তিশালী করুন।

জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু
জয় দেশরত্ন শেখ হাসিনা’’

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech