‘নির্বাচন সুষ্ঠু হবে, কোনো সন্দেহ নেই’

  

পিএনএস ডেস্ক : গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচার আজ রোববার শেষ হচ্ছে। আর তাই শেষ মুহূর্তে যতটা পারা যায় ভোটারদের কাছে পৌঁছাতে চাইছেন প্রার্থীরা। সকাল থেকেই দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে নির্বাচনী প্রচারে নেমেছেন প্রার্থীরা।

নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগমনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম আজ সকালে প্রচার শুরু করেছেন গাজীপুরের কাউলতিয়া ইউনিয়নের সালনা থেকে। সেখানে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে পথসভায় শেষ দিনের প্রচারের প্রথম পথসভায় বক্তব্য দেন। পথসভায় অংশ নেওয়া হাজার হাজার মানুষের ভিড়ে মহাসড়কের এক পাশ বন্ধ হয়ে যায়। নেতা-কর্মীরা দলীয় প্রতীক নৌকার পক্ষে মুহুর্মুহু স্লোগান দিতে থাকেন।

পথসভায় জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ প্রকাশ করে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নির্বাচনে নৌকার পক্ষে জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। গাজীপুরের মানুষ উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেবেন।

এই নির্বাচনে কয়েক দিনের প্রচারের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘যেখানে গেছি, নারী-পুরুষনির্বিশেষে সবার স্বতঃস্ফূর্ত মনোভাব দেখেছি। বিগত দিনে গাজীপুর উন্নয়নবঞ্চিত হয়েছে। গাজীপুরের মানুষ আর অনুন্নয়নের পথে থাকতে চান না। তাঁরা নৌকার পক্ষে জোয়ার সৃষ্টি করেছেন।’

নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ রয়েছে। মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় অংশ নিচ্ছেন। নির্বাচন সুষ্ঠু হবে, এতে বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই।

এর আগেও জাহাঙ্গীর আলম নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে বিএনপির নানা অভিযোগকে ‘অপপ্রচার’ বলে মন্তব্য করেছেন। প্রশাসনকে ব্যবহার করে সরকারি দল আওয়ামী লীগ সুবিধা নিচ্ছে, বিএনপির নেতা-কর্মীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে বলে একাধিকবার অভিযোগ করেছেন বিএনপিমনোনীত প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। এ ব্যাপারে জাহাঙ্গীর আলম নির্বাচন নিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট না করার আহ্বান জানান বিএনপির প্রার্থীর প্রতি।

জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে এই পথসভায় অংশ নেন খুলনা সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আওয়ামী লীগের তালুকদার আবদুল খালেক।

জাহাঙ্গীর আলম জানান, আজ নির্বাচনী প্রচারের শেষ সময় পর্যন্ত তিনি জনসংযোগ করবেন। এখান থেকে কোনাবাড়ী ও কাশিমপুর যাবেন। সেখানে কয়েকটি পথসভায় বক্তব্য দেবেন।

এর আগে ইসির তফসিল অনুসারে গত ১৫ মে গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনে ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সাভারের শিমুলিয়া ইউনিয়নের ছয়টি মৌজা সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্তির প্রজ্ঞাপন ও নির্বাচনের তফসিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ৬ মে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের তফসিলের কার্যক্রম তিন মাসের জন্য স্থগিত করেন হাইকোর্ট। এ আদেশের বিরুদ্ধে নির্বাচনে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এবং নির্বাচন কমিশন পৃথক তিনটি আবেদন করে। শুনানি শেষে ১০ মে আপিল বিভাগ এই নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করে ২৮ জুনের মধ্যে এ নির্বাচন করতে বলেন। এরপর ১৩ মে ইসির এক সভায় ২৬ জুন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech