‘জাতীয় ঐক্যে সরকার ভীত’

  


পিএনএস ডেস্ক: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, বাংলাদেশে বৃহত্তর আন্দোলনের ক্ষেত্র সৃষ্টি হয়েছে। সরকার এতে ভয় পাচ্ছে। আগামী দিনে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবির ভিত্তিতে দেশের জনগনের একটা ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে উঠতে যাচ্ছে, যে আন্দোলনের মুখে সরকারের শুধু পদত্যাগ নয়, এই সরকারকে পিনাক রঞ্জন চক্রবর্তীর ভাষায় লজ্জাজনক পরাজয় বরণ করতে হবে।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স কক্ষে জাতীয়তাবাদী নবীন দলের উদ্যোগে খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দির মুক্তির দাবিতে আয়োজিত আলোচনা সভায় নজরুল এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যর প্রতি ঈঙ্গিত করে নজরুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী লীগ বলছে, আমাদের ছাড়া জাতীয় ঐক্য কেমনে হয়? এখন যে কারণে ঐক্য সেটা হচ্ছে আপনারা যেসব অন্যায়-অনাচার করছেন, অপরাধ করছেন সেসব থেকে দেশ এবং মানুষকে মুক্ত করার আন্দোলন। এই আন্দোলনে আপনাকে সঙ্গে পাওয়া যাবে না। এই আন্দোলনে আপনারা প্রতিপক্ষ, আপনারা অন্য পাশে। দাবি তো আপনাদের কাছেই।

তিনি বলেন, সরকার ভীত সন্ত্রস্ত্র। শনিবার ওবায়দুল কাদের সাহেব মিটিংয়ের মধ্যে বক্তৃতা দিয়ে বলেছেন, দল ক্ষমতায় না থাকলে হাজার পাওয়ারের ভাল দিয়ে তোমাদের (কর্মীদের) খুঁজে পাওয়া যাবে না। এটাই বাস্তবতা। আগের ইতিহাসও তাই। পঁচাত্তর সালের পরেও তাদেরকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এখনো পাওয়া যাবে না।

সন্ত্রস্ত্রের কারণটা কী? দুর্নীতি অনাচার করে তারা মানসিকভাবে এতোই দূর্বল, এখন সব কিছুকেই ভয় পাচ্ছে। খালেদা জিয়ার যে মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন সেটাতে তিনি জামিন পেয়েছেন। অন্য মামলায় জামিন পেয়েছেন দুইটা মামলায় তাকে আটকিয়ে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ যখন ১৯৯৬ সালে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার চান তখন সেটা হালাল। আর আমরা যখন এই মুহুর্তে বলছি, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে তখন সেটা হারাম। তারা যখন নির্বাচন কমিশন বাতিল করে পুনর্গঠন চায়। তখন সেটা হালাল। আর আমরা গত নির্বাচনগুলো দেখলাম, নির্বাচন কমিশন মোটেও দায়িত্ব পালন করছে না, তখন আমরা পুনর্গঠন চাই তখন সেটা হারাম। এটাই আওয়ামী লীগের চরিত্র।

এসবের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করতে নবীন দলকে সংগঠিত হওয়ার আহবানও জানান তিনি।

বিএনপির এই নেতা বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য পাঁচ জন চিকিৎসক দিয়ে মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হলো। তার মধ্যে তিন জন প্রত্যক্ষভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। সরকারের গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড রিপোর্ট দিলো, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের খুব বেশি অবনতি হয়নি। তবে বিশেষায়িত হাসপাতাল হিসেবে পিজিতে তার চিকিৎসা করা যেতে পারে। খালেদা জিয়ার এমআরআই করা দরকার, আর সেটার জন্য যে মেশিন দরকার, সেটা অ্যাপোলো এবং ইউনাইটেডে আছে। কিন্তু তারা তাকে সেখানে নিচ্ছে না।

সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন আহম্মেদ তালুকদারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপি নেতা জয়নুল আবদিন ফারুক, হাবিবুর রহমান হাবিবসহ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech