তারেক রহমানকে দেশে আসতে দেন: সরকারকে ফারুক

  

পিএনএস ডেস্ক :ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন ফারুক বলেছেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া ১৮ মাসের উপরে কারাগারে আছেন। তারেক সাহেব‌ বি‌দে‌শে। তার প‌রেও কেন এতো ভয়। তা‌রেক রহমান‌কে দে‌শে আসতে দেন, রাজনীতি করতে দেন। কোনও অন্যায় হলে আইন আছে। কিন্তু, তাকে নির্বাসিত করে তার বিরুদ্ধে কথা বলবেন সেটা তো রাজনৈতিক কোনও কর্মকাণ্ড না। এটাতো প্রাচীন একটি রাজনৈতিক দলের মুখে শোভা পায় না।’

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘অপরাজেয় বাংলাদেশ’ আয়োজিত বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

ফারুক আরও বলেছেন, ‘বাংলাদেশ কোনদিন পরাজিত হয়নি, হবেও না। বাংলার অকুতোভয় সন্তানেরা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করে দিয়ে গেছেন। সেই স্বাধীনতার স্বাদ গত ৪৮ বছরে এই সরকার যে কয়দিন ক্ষমতায় ছিল, যে কয়বার বিনা ভোটে সরকার পরিচালনা করেছে বাংলাদেশের মানুষকে দিতে পারেনি। সংবিধানের প্রতি সম্মান দেখাতে পারেনি। বাংলাদেশের সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে এই সরকার সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, ‘বিএনপির দাবি হাস্যকর, ভ্রান্ত।’ হানিফকে উদ্দেশ্য করে ফারুক বলেন, ‘এই কথাটুকু আপনি বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন। আমি বলতে চাই আপনারা যতবারই ক্ষমতায় ছিলেন ততোবারই জনগণের দুর্ভোগ বাড়িয়েছেন, ততোবারই আপনারা বিদ্যুৎ গ্যাসের দাম বাড়িয়েছেন, ততোবারই জনগণের দাবিগুলো উপেক্ষা করেছেন এবং ততোবারই ভোটাধিকারের উপর লাথি মেরেছেন। একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে আমি আপনার এই কথা মেনে নিতে রাজি না এবং জনগণও মেনে নিতে রাজি না।’

বিএনপির সিনিয়র নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আমাদেরকে কর্মসূচি দেন। গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি, দেশে গুম, হত্যা, মামলা, ছোট ছোট শিশুদেরকে ধর্ষণের প্রতিবাদ জনগণ আপনাদের কাছ থেকে চায়।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কি দেখতে পান না? সারা দেশে ধর্ষণের ঘটনায় আমি তো মনে করেছিলাম আপনার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পদত্যাগ করবেন। কিন্তু পদত্যাগ তো করল না। ভেবেছিলাম দোষীদের আইনের আওতায় আনবেন। কিন্তু আইনের আওতায় না এসে ক্রসফায়ার করে মেরে ফেলবেন সেটা তো বিচার হয় না। বিএনপির বহু লোককে এভাবে গুম করে, ক্রসফায়ারে হত্যা করেছেন। একদিন বিচার বাংলার বুকে হবেই।’

সংগঠনের সহ-সভাপতি ভিপি ইব্রাহিম এর সভাপতিত্বে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন সিরাজীর সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক সিরাজউদ্দিন আহমেদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, সহ-শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক ড. ফরিদা মনি শহীদুল্লা, কৃষক দলের সদস্য লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার, কে এম রকিবুল ইসলাম‌ রিপন ও এম জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech