বিএনপির এবারের ঈদও নিরানন্দের

  

পিএনএস ডেস্ক : রাত পোহালেই কোরবানির ঈদ। এ ঈদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বেশিরভাগ সিনিয়র নেতা নিজ নিজ এলাকায় ঈদ উদযাপন করবেন। কিন্তুু মাঠের বিরোধী দল বিএনপিতে গতবারের মতো এবারও থাকছে না ঈদ উৎসবের ছাপ।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় বিএনপির নেতাকর্মীদের কাছে এবারের ঈদও নিরানন্দের। তিনি ঈদ কাটাবেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে। গত বছরও তিনি ঈদ কাটিয়েছিলেন হাসপাতালে।

প্রতিবছর খালেদা জিয়া রাজনীতিবিদ, দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, বিদেশি কূটনীতিকসহ সর্বসাধারণের সঙ্গে যে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করতেন, গতবারের মতো এবারও হচ্ছে না সে আয়োজন। এ কারণে ঈদের দিন ঢাকায় বিএনপির পক্ষ থেকে কোনো কর্মসূচি রাখা হয়নি।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘প্রিয় নেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় আমাদের এবারের ঈদও নিরানন্দের। কেন্দ্র থেকে তৃণমূল- কারও মনে কোনো আনন্দ নেই। ঈদের দিন ঢাকায় এবারও দলের কোনো কর্মসূচি নেই।’

বিএনপির নেতারা যে যেখানে ঈদ করবেন

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ঈদের দিন দলের সিনিয়র নেতারা প্রথমে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত করবেন। সেখান থেকে বনানীতে খালেদা জিয়ার কনিষ্ঠপুত্র প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর কবর জিয়ারত করবেন নেতারা। পরে অনুমতি পেলে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কথা রয়েছে দলের সিনিয়র নেতাদের।

এছাড়াও প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিথি ও নাতনি জাহিয়া রহমানসহ স্বজনরাও বিএসএমএমইউ হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বিগত কয়েক বছরের ন্যায় এবারও স্ত্রী ও একমাত্র মেয়েকে নিয়ে লন্ডনে ঈদ করবেন। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শনিবার নিজ এলাকা ঠাকুরগাঁওয়ে গেছেন। তিনি সেখানেই এবার ঈদ করবেন।

ঈদের দিন সকালে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত শেষে নিজ এলাকা কুমিল্লায় যাবেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নরসিংদী যাবেন ড. আবদুল মঈন খান ও সিরাজগঞ্জ যাবেন ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

ঢাকায় ঈদ করবেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান ও বেগম সেলিমা রহমান। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নিজ এলাকা নোয়াখালী, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী চট্টগ্রামে ঈদ করবেন।

এছাড়া বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, শওকত মাহমুদ, আবদুল আউয়াল মিন্টু ঢাকায় ঈদ করবেন। আবদুল্লাহ আল নোমান চট্টগ্রামে ও ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন ময়মনসিংহে ঈদ করবেন।

ঢাকার সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে আছেন। তিনি সেখানেই ঈদ করবেন।

দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী গত বছরের মতো এবারও নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঈদ করবেন।

যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সরোয়ার ও অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বরিশালে, খায়রুল কবির খোকন নরসিংদী ও হারুন-অর রশিদ চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈদ করবেন। দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু নিজ এলাকা নাটোরে, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ময়মনসিংহে এবং শামা ওবায়েদ ফরিদপুরে ঈদ করবেন।

এছাড়া বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য শেখ রবিউল আলম রবি ও আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ ঢাকায় ঈদ করবেন।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech