কাদেরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন, চিকিৎসকের সন্তোষ প্রকাশ

  

পিএনএস ডেস্ক:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের অপারেশন পরবর্তী স্বাস্থ্যের আশানুরুপ উন্নতি হয়েছে এবং তার হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা ক্রমশ উন্নতির দিকে।

শুক্রবার (১১ অক্টোবর) সকালে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে চিকিৎসক দলের প্রধান ডা. ফিলিপ কোহ সন্তোষ প্রকাশ করেন।

ডা. ফিলিপ কোহ’কে উদ্বৃত করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (উন্নয়ন) ডা. আবু নাছের রিজভী সিঙ্গাপুর থেকে টেলিফোনে এ কথা জানান।

ডা. রিজভী জানান, বাইপাস সার্জারি শেষে দ্বিতীয়বারের মতো আজ সকালে কাদেরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। তার স্বাস্থ্য স্থিতিশীল রয়েছে এবং প্রতিটি প্যারামিটার আশানুরূপ উন্নতি করেছে।

কাদেরের হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বেড়েছে এবং শতকরা হারে তা ক্রমশ উন্নতির দিকে যা অত্যন্ত ইতিবাচক বলে জানান ডা. রিজভী।

হাসপাতালে ওবায়দুল কাদেরের সহধর্মিনী এডভোকেট ইসরাতুন্নেছা কাদের, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোস্তাফিজুর রহমানসহ দূতাবাস কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরে মন্ত্রী মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রধানমন্ত্রীর সামরিকসচিব মেজর জেনারেল জয়নাল আবেদীন’কে দেখতে যান এবং তার চিকিৎসার খোঁজখবর নেন।

আজ রাত সাড়ে ১০টায় সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটযোগে ওবায়দুল কাদেরের দেশে ফিরবেন বলে আশা করা যাচ্ছে।

গত ২০ মার্চ কার্ডিও থোরাসিক সার্জন ডা. সিবাস্টিন কুমার সামির নেতৃত্বে সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি সম্পন্ন হয়।

এর আগে গত ২ মার্চ ভোররাতে শ্বাসকষ্ট শুরু হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। সেখানে দ্রুত এনজিওগ্রাম করার পর তার হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। ৪ মার্চ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেয়া হয়। ২০ মার্চ ওই হাসপাতালে তার বাইপাস সার্জারি হয়। দুই মাস ১১ দিন সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে ১৫ মে সন্ধ্যায় দেশে ফিরে আসেন ওবায়দুল কাদের।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech