করোনার কাছে পরাজিত হলেন জাসদ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন মুক্তিযুদ্ধে ৯ নম্বর সেক্টরের পটুয়াখালী-গলাচিপা সাব সেক্টরের ডেপুটি কমান্ডার জাসদ নেতা হাবিবুর রহমান শওকত (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

সোমবার বিকাল ৪টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনাভাইরাস ইউনিট-২ এর আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

জাসদের দপ্তর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গত ১৯ জুলাই তার করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল।

৭০ বছর বয়সী হাবিবুর রহমান শওকত পেশায় ছিলেন আইনজীবী। সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের আইন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন তিনি।

হাবিবুর রহমান শওকত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক তৃতীয় বর্ষের ছাত্র থাকাকালে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ঐতিহাসিক বিলোনিয়া ব্রিজ যুদ্ধে অংশ নেওয়ার পর প্রশিক্ষণ নিয়ে ২ নম্বর সেক্টরে যুদ্ধ শুরু করেন তিনি। পরবর্তীতে তিনি ৯ নম্বর সেক্টরের পটুয়াখালী-গলাচিপা সাব-সেক্টরের ডেপুটি কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৭১ সালের নভেম্বর মাসে পটুয়াখালী জেলাকে হানাদারমুক্ত করার যুদ্ধে বীরোচিত ভূমিকা রাখেন হাবিবুর রহমান শওকত।

মুক্তিযুদ্ধের পর তিনি তৃণমূলে যুদ্ধাপরাধীদের চিহ্নিত করতে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ এবং নির্যাতিত-ধর্ষিত পরিবারের সদস্যদের গণশুনানি করেন।

মুক্তিযুদ্ধের পর জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ গঠন হলে এই দলে যোগ দেন হাবিবুর রহমান শওকত। পটুয়াখালী জেলা জাসদের সভাপতি, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, সাংগঠনিক সম্পাদক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। সর্বশেষ তিনি জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন।

যুদ্ধাপরাধের বিচার আন্দোলনের পাশাপাশি তিনি তেল-গ্যাস-বন্দর-বিদ্যুৎ-সুন্দরবন-জাতীয় সম্পদ রক্ষার আন্দোলনেও যুক্ত ছিলেন।

সেক্টর কমান্ডার্স ফোরাম জানিয়েছে, সোমবার রাতে রায়েরবাজার কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে দাফন করা হবে।

হাবিবুর রহমান শওকতের মৃত্যুতে জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল কে এম শফিউল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক হারুন হাবীব শোক জানিয়েছেন।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন