ওরাও স্বপ্ন দেখে দেশের হয়ে খেলার

  


পিএনএস: মহসিন-শফিকুলরা অন্যদের মতো স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে অক্ষম। হুইল চেয়ারই বড় ভরসা। সেই তাদের নিয়েই দিনব্যাপী প্রথমবারের মতো হুইল চেয়ার ক্রিকেটের আসর হয়ে গেল গতকাল জাতীয় হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে।

সিক্স এ সাইড এই ক্রিকেটে আসরে অংশ নিয়েছে রাজশাহী ওয়ারিয়র্স, খুলনা সাইক্লোন, চিটাগং রাইডার্স ও ঢাকা জায়ান্টস। রাউন্ড ববীন লীগ পদ্ধতিতে খেলা হয়েছে। পাঁচ ওভারের ম্যাচে চ্যাম্পিয়ন খুলনা আর রানার্সআপ চিটাগং। আয়োজকরা চাইছেন এখান থেকে জাতীয় দল গড়ে এশিয়া কাপসহ অন্য আন্তর্জাতিক আসরে খেলতে। এছাড়া শারীরিকভাবে যারা সুস্থ-স্বাভাবিক ভাবে চলাফেরায় অক্ষম কিন্তু ক্রিকেটের প্রতি অসীম ভালোবাসা, তাদের নিয়ে আরো কাজ করার ইচ্ছা। ঢাকা জায়ান্টস ক্লাবের খেলোয়াড় ও আয়োজকদের একজন খন্দকার মইনউদ্দিন। ৩৭ বছর বয়সেও স্বপ্ন দেখেন- হুইল চেয়ারে বসে মাশরাফি-সাকিবদের মতো দেশের জন্য কিছু একটা করার।

৯ বছর বয়সে পোলিও মাইলোটিস থেকে এক পা ছোট হয়ে যায়। তখন থেকে হুইল চেয়ারই ভরসা। কিন্তু হতোদ্যম হয়ে পড়েননি। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের পাঁচগাঁতে নানানভাবে ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। সুযোগ পেলেই খেলে থাকেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিভাগে কর্মরত এই খেলোয়াড়ের স্বপ্ন, ‘এই আসর থেকে জাতীয় দল হবে। দেশের মুখ একসময় উজ্জ্বল হবে- এটাই চাই।’

ঢাকা জায়ান্টস এর আরেক সদস্য শফিকুল আলম তো দু’বছর বয়সে পোলিওতে আক্রান্ত হয়ে স্বাভাবিক চলাফেরার ক্ষমতা হারিয়েছেন। ক্রিকেটের প্রতি ভালোবাসা থেকে হুইল চেয়ারে করেই বল-ব্যাট করে গেছেন। একফাঁকে বললেন, ‘দুইমাস ধরে অনুশীলন করেছি এই আসরে খেলবো বলে। আমার ইচ্ছা থাকলেও সুস্থ-স্বাভাবিকদের মতো খেলতে পারবো না। এটি আমাদের নিজস্ব গণ্ডিতে খেলা বলতে পারেন। অন্যতম বিনোদনের মাধ্যম। আমরাও যে খেলতে পারি তারই প্রমাণ- এই আসর।’ বিশ্বের অনেক দেশের মতো ওরাও চাইছে সরাসরি বিসিবি কিংবা সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা।



পিএনএস/বাকিবিল্লাহ্



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech