রেকর্ডে রেকর্ডে দিন পার

  

পিএনএস ডেস্ক: রেকর্ডের দিনেই ৭ উইকেট হারিয়ে ৫৪২ রানে প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিন পার করলো টাইগাররা। ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে বৈরী আবহাওয়া স্বত্ত্বেও নিজেদের মানিয়ে নিয়ে ব্ল্যাক ক্যাপসদের মোকাবেলা করেছেন সাকিব-মুশফিকরা। ৫৪২ রানে ৭ উইকেট এটা বাংলাদেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর। ৮ই মার্চ ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে সর্বোচ্চ ৬৩৮ রান গড়ে টাইগাররা।

আজকের দিনেই কয়েকটি রেকর্ডের দেখা পেয়েছে টাইগাররা। কিউই পেসারদের তুলোধুনো করে নিজেদের অনেক রেকর্ডই পার করলেন টাইগাররা। সাকিব আল হাসানের তিন হাজার রানের মাইল ফলক, নিজের সর্বোচ্চ স্কোর, দলের হয়ে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর কিংবা সাকিব-মুশফিক জুটির দলীয় রেকর্ড, কোন রেকর্ডের হিসেবে আগে হবে?

টেস্ট ক্যারিয়ারে তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ৩ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সাকিব আল হাসান। ওয়ানডেতে চার হাজার রানের মাইফলক স্পর্শ করতে পারলেও টেস্টে তা যেন সুদুর পরাহত। টেস্টে সর্বপ্রথম ৩ হাজার রান পূর্ণ করেছিলেন সাবেক অধিনায়ক এবং বর্তমান নির্বাচক কমিটির সদস্য হাবিবুল বাশার সুমন। তার ক্যারিয়ার শেষ হয়েছিল ৩ হাজার ২৬ রান করে। তামিম ইকবালও এই ক্লাবে আছেন। তামিমের রান ৩,৩৪৯ রান।

আজকের ম্যাচে তিনটি ব্যক্তিগত রেকর্ড তার। বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার বলে কথা। নিজের ক্যারিয়ারে সর্বোচ্চ রান করলেন তিনি। ২৭৬ বলে তিনি ২১৭ রান করেন। এই রান গড়তে তিনি ৩১টি চার মারেন। তার ডাবল সেঞ্চুরীর পরই উঠে দাঁড়িয়েছে পুরো গ্যালারি। স্বাগত জানিয়েছে করতালির মাধ্যমে। এর আগে বাংলাদেশের হয়ে ডাবল সেঞ্চুরির দাবিদার ছিলেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম।এটা অবশ্য বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডের দাবিদার তিনি। বাংলাদেশের হয়ে এই রেকর্ডের দাবিদার ছিলেন মাত্র দুজন। মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবালও ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকান। নিজের এর আগের সর্বোচ্চ ছিলো ১৪৪ রান শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। সেটাতো ছাড়িয়ে গেছেন আগেই।

রেকর্ড আছে অন্য দিকেও। ৫ম উইকেটে সাকিব মুশফিকের ৩৫৯ রানের জুটি টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ রেকর্ড। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে ৫ম উইকেটে এসে সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বার্নেস এবং ব্রডম্যান জুটি। ১৯৪৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪০৫ রান করে তারা গড়েন এই রেকর্ড। সাকিব মুশফিকদের কয়েক রান আগেই আছেন ভারতের ভিভিএস লক্ষণ ও রাহুল দ্রাবিঢ়ের জুটি। ১১ মার্চ ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তারা ৩৭৬ রানের জুটি গড়ে আছেন তৃতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ডে।

বাংলাদেশের হয়ে এর আগের রেকর্ডটি ইমরুল কায়েস ও তামিম ইকবালের। ৩১২ রানের সর্বোচ্চ পার্টনারশীপ ছিলো পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনা স্টেডিয়ামে। অবশ্য মুশফিক ও আশরাফুল ২৬৭ রানের জুটি গড়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পার্টনারশীপের দাবিদার ছিলেন। শ্রীলংকার গলেতে এর আগে এই পার্টনারশীপ গড়েনে তারা।

রেকর্ড আরও আছে। তাদের এই পার্টনারশীপের রেকর্ড ৫ম উইকেটে সর্বোচ্চ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ম উইকেটে এর আগে লাহোর টেস্টে পাকিস্তানের আসিফ ইকবাল ও জাভেদ মিঁয়াদাদ ২৮১ রান করে সর্বোচ্চ রেকর্ডের দাবিদার ছিলো।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech