মোস্তাফিজ-ম্যাশে গুঁড়িয়ে গেল আয়ারল্যান্ড

  

পিএনএস ডেস্ক : রানের ঘরের আগেই উইকেটের ঘরটা বদলে গেল। কোনো রান তোলার আগেই উইকেট হারাল আয়ারল্যান্ড। শুরুর এই ধাক্কা শেষ পর্যন্ত আর সামলে উঠতে পারেনি স্বাগতিকেরা। মাঝখানে চতুর্থ উইকেটে ৫৫ রানের জুটি গড়ে কিছুক্ষণের প্রতিরোধ। কিন্তু যে মোস্তাফিজের শুরুর আঘাতে টালমাটাল হলো আইরিশরা, শেষ পর্যন্ত সেই কাটার মাস্টারই গুঁড়িয়ে দিলেন। শুরুতে মোস্তাফিজ, শেষে মাশরাফি। ডাবলিনে ১৮১ রানে অলআউট হয়ে গেল স্বাগতিকেরা।

মোস্তাফিজ ২৩ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। ৬ ম্যাচ আর সময়ের হিসাবে দেড় বছর পর ম্যাচে ৪ উইকেট পেলেন। ২০১৫ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩৪ রানে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। ওই ম্যাচের পরই প্রায় এক বছর বিরতি গেছে তাঁর ওয়ানডে ক্রিকেটে। চোট আর পুনর্বাসন শেষে আসল মোস্তাফিজের জাদু যেন ফিরে আসছে ধীরে ধীরে।

গত ম্যাচেও মোস্তাফিজ দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন। শুধু অন্য প্রান্তে যোগ্য সঙ্গী পাননি। রাশটা আলগা হয়ে গেছে। আজ অবশ্য বাকি সব বোলারই পাশে দাঁড়ালেন তাঁর। অভিষিক্ত সানজামুল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নিলেন। পরে উইকেট নিয়েছেন আরও একটি। একটি করে উইকেট আছে সাকিব ও মোসাদ্দেকের। ৬ ওভারে ১৬ রান দেওয়া মাশরাফি নিজের সপ্তম ওভারে টানা দুই বৈধ ডেলিভারিতে ২ উইকেট নিয়ে অলআউট করে দিলেন আয়ারল্যান্ডকে।

তবে তাঁর দ্বিতীয় উইকেটটার আসল মালিক মুশফিক, ডানে অবিশ্বাস্যভাবে যেভাবে ক্যাচ লুফেছেন পিটার চেজের। আজ বোলারদের পাশাপাশি ফিল্ডাররাও এভাবে পাশে দাঁড়িয়েছে। শুরুর দিকে কিছু চোখে লাগার মতো ভুল তাঁরা দ্রুত ভুলিয়ে দিলেন দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ে। মোসাদ্দেক যেমন সহজ একটা ক্যাচ ফেলার প্রায়শ্চিত্ত করলেন পরের ওভারে নিজের বলেই ফিরতি ক্যাচ নিয়ে।

তবে মনে থাকবে সীমানা প্রান্ত থেকে দৌড়ে এসে ঝাঁপিয়ে পড়ে যেভাবে কেভিন ও’ব্রায়ানের ক্যাচটা নিলেন। তামিম যেমন একেবারে সীমানা ঘেঁষে ক্যাচ নিয়েছেন নিয়াল ও’ব্রায়ানের। এই দুটি উইকেটই মোস্তাফিজের ছিল, এটাও বলে দেয় সহযোদ্ধারা কীভাবে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছিল আজ।

আয়ারল্যান্ড আক্ষেপ করতে পারে—তাঁদের অন্তত একজন ব্যাটসম্যান ইনিংসটাকে লম্বা করতে পারল না! সাতজন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্ক ছুঁয়েছে। চার ব্যাটসম্যান ২০ পেরিয়েছেন। একজন পেরিয়েছেন ৪০। এঁদের একজন সেঞ্চুরি আর দুজন ফিফটি পর্যন্ত ইনিংসটা টেনে নিতে পারলেও হতো। কিন্তু বাংলাদেশ নিয়মিত বিরতিতে আঘাত হেনেছে। এক প্রান্তে কেউ উইকেট তুলে নিলে অন্য প্রান্তে রাশটা আলগা হতে দেননি। সাত বোলারের পাঁচজনই উইকেট পেয়েছেন।

তবে শেষ পর্যন্ত আলোটা মোস্তাফিজের ওপরেই। এবার ব্যাটসম্যানদের আলো ছড়ানোর পালা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
আয়ারল্যান্ড : ৪৬.৩ ওভারে ১৮১ (জয়েস ৪৬, নিয়াল ৩০, ডকরেল ২৫, পোর্টারফিল্ড ২২; মোস্তাফিজুর ৪/২৩, মাশরাফি ২/১৮, সানজামুল ২/২২, মোসাদ্দেক ১/২১, সাকিব ১/৩৮, মাহমুদউল্লাহ ০/১৩, রুবেল ০/৪১)

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech