ক্রিকেটারদের যত যৌন কেলেঙ্কারি!

  

পিএনএস ডেস্ক : শুধু ফুটবলরারাই নন, ক্রিকেটাররাও যৌন কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িয়েছেন একাধিকবার৷ কখনও প্রকাশ্যে কখনও বা গোপনে৷ কিন্তু যৌনতার হাতছানিকে উপেক্ষা করতে পারেননি তাঁরা৷ এ ব্যাপারে সবার উপরে শেন ওয়ার্ন৷ খেলার পাশাপাশি বিছানাতেও অসাধারণ ক্যারিজ্মা দেখিয়েছেন ওয়ার্ন৷ কিংবদন্তি এই অজি স্পিনারের কেরিয়ারে যৌন কেচ্ছা লেগেই থাকত৷ যদিও তা নিয়ে বিন্দুমাত্র ভাবতে নারাজ ওয়ার্ন৷ সাল ২০০০৷ বছর পনেরো আগের ঘটনা আজও টাটকা৷ সে সময় স্টিভ ওয়ার অস্ট্রেলিয়া দলের ডেপুটি ছিলেন ওয়ার্ন৷

এক ব্রিটিশ নার্সকে ফোন করে অশ্লীল কথা বলাই নয়, নোংরা এসএমএস করতেও পিছপা হননি তিনি৷ এর ঠিক তিন বছর পরেও ফের যৌন কেলেঙ্কারিতে জড়ান ওয়ার্ন৷ ২৫ বছরের একটি মডেলের সঙ্গে বিছানায় কেরামতি দেখান স্পিনের জাদুকর৷ যা দেখে সেই মডেলও শেনের ফিটনেসের ভূয়সী প্রশংসা করেন৷ শোনা যায় শেনের মাঠের সাফল্যের কারণই মহিলা সঙ্গ৷ একই রাতে একাধিক মহিলাকে সয্যসঙ্গী করা ছিল ওয়ার্নের নেশা৷

ওয়ার্ন থেকে এবার কেভিন পিটারসেনে আসা যাক৷ ইংল্যান্ডের মারকুটে এই ব্যাটসম্যান ভ্যানিসা নিমোর সঙ্গে এক মাস সহবাস করে তাঁকে ভুলে যান৷ ভ্যানেসা জানিয়েছিলেন কেপি তাঁকে দিনের মধ্যে বহুবার যৌনমিলনের জন্য জোর করতেন৷ বাদ যাননি নিউজিল্যান্ডের স্পিডস্টার ড্যারেল টাফি৷ ২০০৫-এ ২৩ বছরের এক যুবতীর সঙ্গে তাঁর সেক্স ভিডিও ফাঁস হয়ে যায়৷ যদিও পরে ওই মহিলা টাফিকে চেনেনা বলেই দাবি করেন৷

ভারতের চির প্রতিদ্ধন্দ্বী পাকিস্তান৷ দলের প্রাক্তন সেরা তিন কিংবদন্তি ওয়াসিম আক্রম, সাকলিন মুস্তাক ও সইদ আফ্রিদিরও নাম জড়ায় এ ব্যাপারে৷ ২০০০-এ করাচির এক হোটেলে এক ঝাঁক তরুণীদের মাঝে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায় আফ্রিদিকে৷ তাঁর সঙ্গে ছিলেন হাসান রাজা ও আতিক উল জামান৷ যদিও পরে আফ্রিদিদের বক্তব্য ছিল যে করাচির হোটেলে মেয়েরা তাঁদের অটোগ্রাফ নিতেই এসেছিল৷ নব্বইয়ের দশকের শেষে ওয়াসিম ও সাকলিন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিলেন৷ ওখানকার বিখ্যাত স্ট্রিপ ক্লাবে তাঁদের যাওয়ার কথা প্রকাশ্যে চলে আসে৷

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech