দ্বিতীয় রাউন্ডে ইংল্যান্ড

  

পিএনএস ডেস্ক : রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পানামার বিরুদ্ধে ৬-১ গোলের বড় ব্যবধানে জিতে দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকিট পেয়ে গেল সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। একই সঙ্গে টানা দুই ম্যাচ হেরে গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে গেল ক্যারিবীয়ান দেশটি।

এদিন, হ্যারি কেন ও জন স্টোনসের জোড়া গোলে প্রথমার্ধে ৫ বার পানামার জালে বল পাঠায় ইংল্যান্ড। এর মধ্যে ম্যাচের ৮ মিনিটেই কর্নার থেকে উঠানো বলে গোল করে ইংলিশদের এগিয়ে দেন জন স্টোনস। ২২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন অধিনায়ক হ্যারি কেন। তবে এখানেই তৃপ্তির ঢেকুর তুলেননি ইংলিশরা। ম্যাচের ৩৬ মিনিটের মাথায় জোসে লিনগার্ড এবং ৩৯ মিনিটের মাথায় ফের গোল করে ইংলিশদের ৪-০ গোলে এগিয়ে দেন জন স্টোনস। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে ডি বক্সের মধ্যে পানামার ডিফেন্ডাররা হ্যারি কেনকে ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় ইংল্যান্ড। সেখান থেকে ইনজুরি টাইমে গোল করে দলকে আবারও এগিয়ে (৫-০) দেন হ্যারি।

দ্বিতীয়ার্ধে আরও একটি গোল পায় ইংলিশরা। বিরতির পর ম্যাচের ৬২ মিনিটে মাঝ মাঠ থেকে পাওয়া বল ডি-বক্সের সামনে পেয়ে যান হ্যারি কেন। এ সময় ইংলিশ অধিনায়কের জোরােলো শট এক ডিফেন্ডারের শরীরে লেগে বল জালে ঢুকে যায়। আর এই গোলের মধ্য দিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের রেকর্ড বইয়েও নাম লেখাল হ্যারি কেনরা। এটাই যে এখন পর্যন্ত এই বিশ্বকাপের কোনো প্রতিপক্ষের জালে সবচেয়ে বেশিবার বল পাঠানোর রেকর্ড।

এদিকে, প্রথমার্ধে ২ গোলের পর দ্বিতীয়ার্ধে ওই গোলের মধ্য দিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর এই বিশ্বকাপে দ্বিতীয় হ্যাটট্রিকের দেখা পেয়েছেন ইংলিশ অধিনায়ক হ্যারি কেন। ইংল্যান্ডের ৬ গোলের অন্য গোলটি জোসে লিনগার্ডের। তবে শেষ দিকে সান্ত্বনাসূচক একটি গোলের দেখাও পায় পানামা। ক্যারিবীয়ান দেশটি হয়ে ম্যাচের ৭৮ মিনিটে গোলটি করেন ফিলিপে বালয়। এরপর উল্লাসে ফেটে পড়েন পানামার খেলোয়াড়রা। একই সঙ্গে গ্যালারিতে উপস্থিত পানামার সমর্থকরাও। ৬ গোলে পিছিয়ে থাকা একটি দলের কাছে এই একটি গোল কোনো বিষয়ই না। কিন্তু পানামা এবং তাদের সমর্থকদের কাছে এই একটি গোলই যেন হয়ে উঠলো আনন্দের উপলক্ষ। যেন তাদের সমর্থকরা জয় নয়, একটি গোলের জন্যই অপেক্ষা করছিল।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech