মোস্তাফিজের কাছে হেরে গেল রংপুর

  

পিএনএস ডেস্ক : রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ গড়িয়েছে শেষ ওভারের নাটকে। জয়ের জন্য রংপুর রাইডার্সের ১০ রান। রাজশাহী অধিনায়ক মেহেদী মিরাজ তার তূণ থেকে বের করলেন আসল অস্ত্রটি। বোলিংয়ে আসলেন 'কাটার মাস্টার' মুস্তাফিজুর রহামান। দর্শকরা নড়েচড়ে বসলেন। রংপুর রাইডার্সকে হতাশ করে কাটার মাস্টার দিলেন মাত্র ৩ রান! শেষ বলে জয়ের জন্য দরকার ৭। ছক্কা মারলে ম্যাচ টাই হয়ে সুপার ওভারে। কিন্তু রাইলি রুশো সেই অংক মেলাতে পারলেন না। ৫ রানের দুর্দান্ত জয় তুলে নিল রাজশাহী কিংস। যার মূল নায়ক এই 'ম্যাজিক্যাল মুস্তাফিজ'।

দিনের প্রথম ম্যাচে রাজশাহী কিংসের দেওয়া রান তাড়া করতে নামা রংপুর রাইডার্সের ক্রিস গেইলের সঙ্গে ওপেনিংয়ে দেখা গেল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে! তবে চমক দেওয়া জুটিটা জমে উঠতে পারেনি। প্রথম ওভারেই ০ রানে কামরুল ইসলামের শিকার হন মাশরাফি। সেই কামরুলের বলেই সৌম্য সরকারের তালুবন্দি হন ১৪ বলে ২ চার ২ ছক্কায় ২৩ রান করা ক্যারিবীয় দানব ক্রিস গেইল। দলের হাল ধরেন মিঠুন আর রুশো। ৩১ বলে ৩০ করা মিঠুন মোহাম্মদ হাফিজের শিকার হলে ভাঙে ৪০ রানের জুটি।

হাফিজের দ্বিতীয় শিকার হন রংপুরের মিডল অর্ডারের নির্ভরতা রবি বোপারা (১)। বেনি হাওয়েল রান-আউট হয়ে গেলে অর্ধেক ইনিংস শেষ হয় রংপুর রাইডার্সের। তবে একপ্রান্তে অবিচল ছিলেন ইনফর্ম রাইলি রুশো। নাহিদুল ইসলামকে নিয়ে তিনি স্কোর এগিয়ে নিয়ে যান। উদানার করা ১৯তম ওভারের পঞ্চম বলে ক্যাচ দিয়ে বেঁচে গিয়ে ১২ বলে ১৬ করা নাহিদুল পরের বলেই ধরা পড়েন সৌম্য সরকারে হাতে। আবার শংকা ভর করে রংপুর শিবিরে।

জয়ের জন্য শেষ ওভারে মাশরাফি বাহিনীর দরকার ছিল ১০ রান। রাজশাহী অধিনায়ক মেহেদী মিরাজ বোলিংয়ে আনলেন মুস্তাফিজুর রহমানকে। কাটার মাস্টার দিলেন মাত্র ৩ রান! শেষ বলে জয়ের জন্য দরকার ৭। ছক্কা মারলে ম্যাচ টাই হয়ে সুপার ওভারে। কিন্তু রাইলি রুশো সেই অংক মেলাতে পারলেন না। রংপুর থামল ৬ উইকেটে ১৩৫ রানে। ৪৪ রানে অপরাজিত রুশো। ৫ রানের দুর্দান্ত জয় তুলে নিল রাজশাহী কিংস। যার মূল নায়ক নিঃসন্দেহে মুস্তাফিজ।

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৫ রান তোলে রাজশাহী কিংস। ম্যাশের করা ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে শফিউল ইসলামের হাতে ধরা পড়েন রাজশাহী অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ (০)। অপর ওপেনার মুমিনুল হককে (১৪) ফেরত পাঠান সোহাগ গাজী। ক্রমেই ভয়ংকর হয়ে উঠছিলেন সৌম্য সরকার। ১৩ বলে ২ চার ১ ছক্কায় ১৮ করা এই হার্ডহিটার মাশরাফির দ্বিতীয় শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেন।

চাপে থাকা রাজশাহী কিংসকে পথ দেখায় হাফিজ-জাকিরের জুটি। ভুল বোঝাবুঝিতে হাফিজ (২৬) রান-আউট হয়ে গেলে ৪৪ রানের জুটির অবসান হয়। ফরহাদ রেজার বলে বোপারার তালুবন্দি হন লাওরি ইভান্স (২)। শেষের দিকে আর কেউ বড় রান করতে পারেননি। জাকির হাসান অপরাজিত থাকেন ৩৬ বলে ২ চার ১ ছক্কায় ৪২ রানে। ২০ ওভারে রাজশাহীর সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেটে ১৩৫ রান। ২টি করে উইকেট নেন মাশরাফি এবং ফরহাদ রেজা। শফিউল আর সোহাগ গাজী নেন ১টি করে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech