প্রথম বিশ্বকাপ জিততে ইংল্যান্ডের চাই ২৪২

  

পিএনএস ডেস্ক : ক্রিকেটের উদ্ভব হয়েছিল যে দেশে, সেই দেশটাই এখনও পর্যন্ত বিশ্বকাপ জিততে পারেনি। তিনবার ফাইনালে গিয়েও হতাশ হতে হয়েছে। এবার ঘরের মাটিতে ফেবারিট হিসেবেই বিশ্বকাপ শুরু করেছিল তারা। ২৭ বছর পর এবারের বিশ্বকাপে ফাইনালে উঠে ইংল্যান্ড আজ খেলছে ফেবারিটের মতোই। ইংলিশ পেসারদের দাপটে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ২৪১ রান। ক্রিকেটের তীর্থ লর্ডসে এই রান চেজ করতে পারলেই ইংল্যান্ডকে নতুন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হিসেবে দেখবে ক্রিকেটবিশ্ব। আর না পারলে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের ইতিহাস গড়বে নিউজিল্যান্ড।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ইংলিশ পেসারদের তোপের মুখে পড়েছিল নিউজিল্যান্ড। তাদের শুরুটা ছিল সতর্ক। ক্রিস ওকসের বলে হেনরি নিকোলাসকে আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা এলবিডাব্লিউ ঘোষণা করলেও রিভিউ নিয়ে বাঁচেন তিনি। তবে ফাইনালেও ব্যর্থ মার্টিন গাপটিল। দলীয় ২৯ রানে ১৯ রান করে ওকসের বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে ফিরেন তিনি। শুরুর ধাক্কা সামলে নিকোলাসের সঙ্গে জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন কেন উইলিয়ামসন। দলের স্কোর একশ পার হতেই বিপদ।

লিয়াম প্ল্যাংকেটের বলে উইকেটকিপার জস বাটলারের গ্লাভসবন্দি হন ৫৩ বলে ৩০ রান করা কিউই অধিনায়ক। এর সঙ্গেই ভাঙে ৭৪ রানের প্রয়োজনীয় এক জুটি। ৭১ বলে ৪ বাউন্ডারিতে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন নিকোলাস। আর বেশিদূর যেতে পারেননি। ৫৫ রানে তাকে বোল্ড করে দেন লিয়াম প্ল্যাংকেট। অভিজ্ঞ রস টেইলরকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছিল কিউইরা। তাকে ১৫ রানে এলবিডাব্লিউ করে স্বপ্নভঙ্গ করেন মার্ক উড। আশার আলো হয়ে থাকা জেমস নিশামকে (১৯) ফিরিয়ে তৃতীয় শিকার ধরেন লিয়াম প্ল্যাংকেট।

৪৪তম ওভারে দুইশ পার হয় কিউইদের স্কোর। এরপরই গ্র্যান্ডহোমকে (১৬) বদলি ফিল্ডার জেমস ভিন্সের তালুবন্দি করেন ক্রিস ওকস। হাফসেঞ্চুরির কাছে গিয়ে ব্যর্থ হন ল্যাথাম। ৪৭ রান করে তৃতীয় শিকার হন ওকসের। শেষ ওভারে ম্যাট হেনরিকে (৪) বোল্ড করে দেন জোফরা আর্চার। ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন ক্রিস ওকস এবং লিয়াম প্ল্যাংকেট। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন মার্ক উড এবং জোফরা আর্চার। নির্ধারিত ৫০ ওভারে কিউইদের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২৪১ রান।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech