জয়ের জন্য শেষ দিনে ভারতের দরকার ৩২৪ রান

  

পিএনএস ডেস্ক : দুর্দান্ত বোলিং টিম ইন্ডিয়ার। ২৯৪ রানে শেষ অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংস। তবুও গাব্বায় ৩২৮ রানের টার্গেট ভারতের সামনে। কিন্তু গাব্বার বাইশ গজে চতুর্থ ইনিংসে রান তাড়া করে জয় মাত্র ২৩৬ রানে। টার্গেট কঠিন হলেও হাল ছাড়তে নারাজ রাহানেরা। ব্রিসবেন টেস্ট ড্র করলেই বর্ডার-গাভাস্কর ট্রফি ধরে রাখবে ভারত।

সিডনিতে বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছিলেন মোহম্মদ সিরাজ। ব্রিসবেনে সেই সব কটাক্ষের বল হাতে জবাব দিলেন টিম ইন্ডিয়ার এই ডানহাতি পেসার। দ্বিতীয় অস্ট্রেলিয়ার পাঁচ উইকেট তুলে নিয়ে গাব্বায় ভারতকে লড়াইয়ে রাখলেন সিরাজ। টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবার ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করলেন ভারতীয় এই পেসার। মাত্র তৃতীয় টেস্টেই এই কৃতিত্ব ছুঁয়ে ফেললেন সিরাজ। সিডনিতে তৃতীয় টেস্টে তাঁকে 'ব্রাউন ডগ' বল কটাক্ষ করেছিলেন এসসিজি'র দর্শকরা।

মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে অভিষেক হয় সিরাজের। অভিষেকেই বল হাতে নজর কেড়েছিলেন হায়দরাবাদের ২৬ বছরের এই তরুণ। সিডনিতে দ্বিতীয় টেস্টে মাত্র দু’টি উইকেট পেয়েছিলেন। ব্রিসবেনে প্রথম ইনিংসে একটি মাত্র উইকেট পেলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ৭৩ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট নিয়ে ভারতকে লড়াইয়ে ফেরান সিরাজ। ৬১ রান খরচ করে চার উইকেট নিয়ে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন শার্দুল ঠাকুর। একটি উইকেট ওয়াশিংটন সুন্দরের।

প্রথম ইনিংসে ৩৩ রানে এগিয়ে থাকা অস্ট্রেলিয়াকে দ্বিতীয় ইনিংসে তিনশ রানের গণ্ডি ছুঁতে দিলেন না ভারতীয় বোলাররা। বিনা উইকেটে ২১ রানে আজ সোমবার খেলা শুরু করে দিনের শুরুটা দারুণ করেছিলেন দুই অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও মার্কাস হ্যারিস। কিন্তু সময় যত গড়ায় ম্যাচ আধিপত্য দেখান টিম ইন্ডিয়ার বোলাররা। স্টিভ স্মিথ ছাড়া কোনও অজি ব্যাটসম্যান হাফ-সেঞ্চুরি করতে পারেননি। অজি ইনিংসের সর্বোচ্চ রান স্মিথের ৫। বৃষ্টির জন্য এদিন বেশ কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ ছিল।

ওপেনিং জুটিতে ৮৯ রানই অস্ট্রেলিয়া সেরা পার্টনারশিপ। ভারতকে প্রথম সাফল্য এনে দেন শার্দুল। ব্যক্তিগত ৩৮ রানে হ্যারিসকে ফেরান তিনি। ভারতের সামনে বড় রানের টার্গেট দিতে শুরু থেকেই এদিন আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন ওয়ার্নার ও হ্যারিস। মাত্র ১১.২ ওভারেই পঞ্চাশ রানের গণ্ডি ছুঁয়ে ফেলে অজিবাহিনী। ৬৯ বলে ৫০ রান করে তারা।

কিন্তু ড্রিঙ্ক ব্রেকের পরের ওভারেই ওয়ার্নারকে তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে জোর ধাক্কা দেন সুন্দর। ব্যক্তিগত ৪৮ রানে ওয়ার্নারকে এলবিডব্লিউ করেন ভারতীয় অফ-স্পিনার। এরপর মার্নাস ল্যাবুশানে ও স্টিভ স্মিথ তৃতীয় উইকেটে ৩২ রান যোগ করে। কিন্তু সিরাজ দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে আক্রমণাত্মক ল্যাবুশানেকে ফেরান। প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরিকারী ল্যাবুশানে এদিন ২২ বলে পাঁচটি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৫ রানে রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন।

একই ওভারে ম্যাথু ওয়েডকে তুলে নিয়ে ভারতকে ম্যাচ ফেরোন সিরাজ। মাত্র ৩ বল খেলে শূন্য রানে উইকেটের পিছনে ঋষভ পন্তের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ওয়েড। এরপর স্মিথ ও ক্যামেরন গ্রিন অজি ইনিংসের হাল ধরেন। চার উইকেটে ১৪৯ রান তুলে লাঞ্চে যায় অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু লাঞ্চের পর স্মিথকে তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন সিরাজ। গ্রিনের সঙ্গে ৭৩ রান যোগ করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন সাবেক অজি অধিনায়ক। গ্রিনকে ব্যক্তিগত ৩৭ রানে আউট করেন ঠাকুর। শেষে জোস হ্যাজেলউডকে তুলে নিয়ে অজি ইনিংসে সমাপ্তির পাশাপাশি টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবার ইনিংসে পাঁচ নেওয়ার স্বাদ পূরণ করেন সিরাজ।

রান তাড়া করতে নেমে ভারত স্কোর বোর্ডে ৪ রান যোগ করার পর বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। পরে আর খেলা শুরু হয়নি৷ রোহিত শর্মা ৪ ও শুভমন গিল ০ রানে অপরাজিত রয়েছেন। জয়ের জন্য মঙ্গলবার ম্যাচের শেষ দিন ভারতের দরকার ৩২৪ রান।

পিএনএস/এসআইআর

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন