শ্রীলঙ্কা সিরিজের শেষে ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তির সিদ্ধান্ত

  

পিএনএস ডেস্ক : ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শেষে চলতি বছরের কেন্দ্রীয় চুক্তির সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে যাচ্ছে। চলতি মাসে শ্রীলঙ্কার সফর ও মে মাসে দেশের মাটিতে সিরিজ শেষে কেন্দ্রীয় চুক্তির সিদ্ধান্ত নেবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান। মঙ্গলবার দুপুরে রাইজিংবিডিকে তিনি বলেন, ‘আমরা নতুন বছরের চুক্তি এখনো ঘোষণা করিনি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুটি সিরিজের পারফরম্যান্স দেখে। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শেষে আমরা বসতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ব্যাক টু ব্যাক সিরিজ হওয়ায় আমরা আপাতত অপেক্ষা করছি।’

এক বছর পর পর ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে পরিবর্তন আনে বিসিবি। গত বছরের মার্চে কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকা তৈরি করা হয়েছিল। প্রথমবারের মতো বিসিবি লাল বল ও সাদা বলে প্রতিনিধিত্ব করা ক্রিকেটারদের জন্য আলাদা কেন্দ্রীয় চুক্তি করে। এরপরও কেন্দ্রীয় চুক্তিতে মনোনীত হন ১৬ ক্রিকেটার।

তিন ফরম্যাটের জন্যই নির্বাচিত হয়েছিলেন সাত ক্রিকেটার। তারা হলেন- তামিম ইকবাল, লিটন কুমার দাশ, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিথুন, তাইজুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

শুধুমাত্র লাল বল অর্থাৎ টেস্ট ক্রিকেটের জন্য কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ঢোকেন চার ক্রিকেটার। টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকসহ এ তালিকায় আছেন নাঈম হাসান, দুই পেসার আবু জায়েদ রাহী ও ইবাদত হোসেন চৌধুরী।

এছাড়া সীমিত পরিসরের জন্য কেন্দ্রীয় চুক্তিতে আছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, অফিফ হোসেন ধ্রুব ও নাঈম শেখ।

নিজেকে সরিয়ে নেওয়ায় মাশরাফি বিন মুর্তজাকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাখা হয়নি। সাকিব আল হাসান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ থাকায় তাকেও বাদ দেওয়া হয়েছিল। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ক্রিকেটে ফেরা সাকিব নিশ্চিতভাবেই আবার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ঢুকবেন।

তবে দেশের খেলা ছেড়ে সাকিব আইপিএল খেলতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় নড়চড়ে বসতে যাচ্ছে বিসিবি। এবারের চুক্তির আগে বিসিবি ক্রিকেটারদের কাছ থেকে সাফ জানতে চায়, কে টেস্ট খেলবে আর কে তা খেলবে না? মোদ্দাকথা, আগেভাগেই ক্রিকেটারদের কাছ থেকে তাদের ইচ্ছার কথা জানতে চায় যেন কোনও সিরিজের আগে কিংবা হুট করে ক্রিকেটাররা ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে খেলতে যাওয়ার বায়না না করতে পারেন।

বিষয়টি নিয়ে আকরাম খান বলেন, ‘আমাদের প্রেসিডেন্ট গণমাধ্যমে এমন ঘোষণা দিয়েছিলেন। আমরা সেভাবেই কাজ করবো। কেন্দ্রীয় চুক্তি নিয়ে এখনও আমাদের বৈঠক হয়নি। সামনে হবে। সব কিছু তখনই সিদ্ধান্ত নেব। ’

কেন্দ্রীয় চুক্তি কেমন হতে পারে সে সম্পর্কে ধারণাও দিয়ে বিসিবি সভাপতি বলেছিলেন, ‘নতুন চুক্তিতে অনেক কিছু যোগ হবে। সেখানেও লেখা থাকবে কে কোন ফরম্যাট খেলতে চায় তাদেরকে বলতে হবে এবং সেটাও জানতে হবে তাদের অন্য কোনও জায়গায় অন্য কিছু থাকে তাহলে জাতীয় দলে খেলবে নাকি ওখানে। এই চুক্তিতে যারা স্বাক্ষর করবে তাদের আমরা যেতে দেবো না। এখন ব্যাপারটা খোলামেলা। আগে ছিল সেটা ব্যক্তিগত, এখন এটা আমরা কাগজে কলমে লিখিতভাবে নিয়ে নিচ্ছি। এখানে কারও কিছু বলার থাকবে না। দিলো না বা জোর করে নিচ্ছি, এটা বলার কিছু থাকবে না।’

পিএনএস/এসআইআর

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন