ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ভিডিওের কঠোর অবস্থানে ইউটিউব

  

পিএনএস ডেস্ক:ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত, সন্ত্রাসী বা জঙ্গিদের সহিংস কোনো ভিডিও কিংবা জঙ্গি কার্যক্রমে উৎসাহ দেয়, এমন ভিডিওর বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিচ্ছে ইউটিউব। এ ধরনের কোনো পোস্ট শনাক্ত করে তা মুছে ফেলতে বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছে গুগলের ভিডিও সেবা ইউটিউব। এ ছাড়া সন্ত্রাসবিরোধী গ্রুপের সঙ্গে আরও ঘনিষ্ঠভাবে কাজের আগ্রহ দেখিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। গতকাল রোববার এক ব্লগ পোস্টে গুগল এ তথ্য জানিয়েছে।

ব্লগ পোস্টে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসে উৎসাহ দেওয়া কোনো ভিডিও বা ধর্মীর অনুভূতিতে আঘাত দেওয়া ভিডিওর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেবে গুগল। নীতিমালা মেনে এ ধরনের ভিডিও তৈরি করা হলেও তাতে সতর্কবার্তার পাশাপাশি অর্থ আয়ের কোনো সুযোগ থাকবে না বা এ ধরনের ভিডিও দেখার জন্য কাউকে সুপারিশ করা হবে না।

সহিংস ও জঙ্গি উসকানিমূলক পোস্ট শনাক্ত করতে আরও বেশি প্রকৌশলী ও প্রযুক্তির সমন্বয় করবে গুগল। গুগলের কর্মকর্তা কেন্ট ওয়াকার বলেন, অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মিলে অনেক দিন ধরেই নীতিমালা ভঙ্গকারী পোস্ট শনাক্ত ও মুছে ফেলতে কাজ করা হচ্ছে—তবে এখন বুঝতে পারছি আরও কাজ করতে হবে।
এ ছাড়া জঙ্গিদের নিয়োগদাতাদের শনাক্ত করতে সন্ত্রাসবিরোধী গ্রুপের সঙ্গে কাজ করবে গুগল। নির্দিষ্ট অনলাইন বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে সম্ভাব্য আইএস সদস্যদের কাছে যাবে গুগল এবং তাঁদের সন্ত্রাসবিরোধী ভিডিও দেখিয়ে সঠিক পথে ফেরানোর চেষ্টা করার কথাও বলেছে গুগল।

সম্প্রতি জার্মানি, ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের মতো দেশে সন্ত্রাসী হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ফেসবুক, টুইটার ও গুগলের মতো প্রতিষ্ঠানের ওপর চাপ বাড়ছে। অনলাইন সেবা ব্যবহার করে যাতে জঙ্গিদের কনটেন্ট না ছড়ায়, সে জন্য ব্যবস্থা নিতে বলা হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার এক ব্লগ পোস্টে ফেসবুকের পক্ষ থেকে জঙ্গি পোস্ট শনাক্ত ও মুছে ফেলতে উদ্যোগ নেওয়ার কথা বলা হয়। এ জন্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্য নিয়ে ইমেজ ম্যাচিং ও ভাষা বোঝার প্রযুক্তি কাজে লাগাতে চায় ফেসবুক।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech