সোশ্যাল মিডিয়াতে জনপ্রিয় হতে যা করবেন

  

পিএনএস ডেস্ক: বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন অথচ সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম ব্যবহার করছেন না এমন কাউকে মনে হয় খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাদের দৈনন্দিন জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়া সাইট গুলো। সোশ্যাল মিডিয়া একটি খোলা বইয়ের মতো। একজন তার মোটামোটি সব কিছুই সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে থাকে। এছাড়া সবাই তাদের সুন্দর মুহুর্ত গুলোও সংরক্ষন করতে চায় সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে। অবশ্য নিজেকে ভিন্নভাবে উপস্থাপনের ঝোঁকও অনেকের মধ্যে থাকে।

তাই নিজেকে অন্যের নিকট গুরুত্বপূর্ণ ও জনপ্রিয় করে তুলতে বর্তমান সময়ে অনেককেই সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলোতে প্রতিযোগীতায় নামতে দেখা যায়। চলুন জেনে নিই কোন কাজগুলো আপনাকে খুব অল্প সময়ে জনপ্রিয় করে তুলবে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

১. নিজের জায়গা ঠিক করুন:
ইন্টারনেটের ভার্চুয়াল দুনিয়ায় আপনি বহু সোশ্যাল প্লাটফর্ম পাবেন। আর প্রতিটি প্লাটফর্মেরই রয়েছে নিজস্ব বৈশিষ্ট। যেমন লেখকরা ব্যবহার করেন মিডিয়াম, ফটোগ্রাফার রা ব্যবহার করেন ইন্সটাগ্রাম, ভিডিও প্লাটফর্ম হিসেবে সবচেয়ে জনপ্রিয় ইউটিউব। আর ফেসবুক তো আছেই। তবে বিশেষভাবে এই কাজটির ফেসবুকের নাম নেওয়া যায় না। ফেসবুক তৈরী হয়েছে মানুষকে একে অপরের সাথে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য। মনে করুন আপনি যদি একজন কমেডিয়ান হয়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই মানুষ তার প্রিয়জনের খোজ খবর রাখা বাদ দিয়ে আপনার কমেডি দেখবে না। সেহেতু আপনাকে এমন একটি জায়গা বেছে নিতে হবে যা আপনি যেই কাজটি করতে চাইছেন তার জন্যই তৈরী এবং সেখানে যে সমস্ত ভিজিটর আসে তারা ঐ ধরনের কন্টেন্ট এর খোঁজেই আসে। যদিও ফেসবুক অন্যন্য প্লাটফর্মের চাইতে অনেক বেশি শক্তিশালী একটি মাধ্যম কিন্তু এটি কোনভাবেই এর নিজ বৈশিষ্টের বাইরে যেয়ে আপনার উপকারে আসবে না।

২. একটি বিষয়বস্তু নির্ধারণ করুন:
সোশ্যাল মিডিয়াতে নিজেকে জনপ্রিয় করতে চাইলে আগে নিজেকে চিনুন। আপনি যদি না জানেন যে এমন কি রয়েছে যা আপনি খুব ভালোভাবে জানেন এবং অন্যরা সে ব্যাপারে জানতে আগ্রহী হবে তাহলে আপনি কখনোই কাউকে নিজের প্রতি আকৃষ্ট করতে পারবেন না। এজন্য যে ব্যপারটিতে আপনি সবচেয়ে বেশি পারদর্শি এমন একটি বিষয় বেছে নিয়ে তার উপর কাজ করা শুরু করুন। মনে রাখবেন একসাথে একাধিক

বিষয় নিয়ে কাজ করতে যাবেন না। এতে একদিকে যেমন মানুষ আপনার প্রতি আগ্রহ হারাবে অপরদিকে আপনার জনপ্রিয়তাও কমতে শুরু করবে। তাছাড়া অনেক বিষয় নিয়ে কাজ করলে বিশদ তথ্য অর্জন করা সম্ভব হয় না। তাই এসবক্ষেত্রে আপনার সম্পর্কে মানুষের নেতিবাচক চিন্তাও চলে আসতে পারে।

৩. সময় মেনে চলুন:
সোশ্যাল মিডিয়াতে জনপ্রিয়তা লাভের সফরে আপনাকে জানতে হবে যে আপনার দর্শক আপনার থেকে কি চায় এবং কখন চায়? আপনাকে নিয়ম মাফিক একটি সময় নির্ধারন করে নিতে হবে যখন আপনি আপনার কন্টেন্ট সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করবেন। ধরে নিই আপনি যদি প্রতি শনিবার সকাল ১০.০০ টার সময় পোস্ট করেন তবে আপনার মনে রাখতে হবে যে প্রতি শনিবার ১০.০০ টার সময় আপনার দর্শকরা অধীর আগ্রহে আপনার পোস্ট এর জন্য অপেক্ষা করবে। পাশাপাশি কোন ধরনের কন্টেন্ট সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে সে বিষয়ের প্রতিও লক্ষ্য রাখতে হবে।

৪. পোস্ট এর মান ঠিক রাখুন:
আপনাকে নিয়মিত পোষ্ট করতে হবে তার মানে এই নয় যে যা ইচ্ছে তাই পোস্ট করবেন। সব সময় মাথায় রাখুন যে মানুষ ইন্টারনেটে সবসময় কিছু জানার জন্য আসে। তারা অজানাকে জানতে চায়, সমস্যার সমাধান চায়। তাই আপনার পোস্ট যদি তাদেরকে তথ্য বা সমাধান দিতে ব্যর্থ হয় তাহলে দর্শক হারানোর জন্য প্রস্তুত থাকুন। যে বিষয়টি নিয়ে আপনি পোস্ট করবেন সে বিষয়ে প্রথমে নিজে বিশদ ধারনা নিন ও পর্যালোচনা করুন। পরবর্তীতে নিজের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানের আলোকে আপনার দর্শকদের জন্য একটি মানসম্মত পোস্ট উপহার দিন।

৫. বাস্তব জীবনেও সোশ্যাল হউন:
আপনি সোশ্যাল মিডিয়াতে যতই পপুলার হোন না কেন আপনি ততক্ষন সম্পূর্ণভাবে জনপ্রিয়তা পাবেন না যতক্ষনা আপনি বাস্তব জীবনেও সোশ্যাল হতে পারছেন। কারণ আপনি ছাড়াও অনেক ব্যক্তি রয়েছেন যারা আপনার চেয়ে অনেক বেশি জনপ্রিয় এবং প্রতিভাবান। তাই নিজের দক্ষতাকে বাড়িয়ে নেওয়ার জন্য আপনার সামনের সবচেয়ে সহজ রাস্তাটি হলো ঐ সমস্ত মানুষদের সাথে বাস্তাব জীবনেও যোগাযোগ স্থাপন করা যারা আপনার বিষয়েই কাজ করে যাচ্ছেন। তাছাড়া তাদের সাথে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে আপনি নিজের জ্ঞানের পরিধিকে আরো বড় করতে পারবেন।

৬. বার বার চেষ্টা করুন:
সোশ্যাল মিডিয়াতে জনপ্রিতা লাভের বিষয়টি খুব বেশি সহজ কাজ নয়। এর জন্য আপনাকে পেতে হবে একঝাঁক এমন ব্যক্তি যারা আপনার কথার মর্ম বুঝবে। হয়তো এমনটি হতে পারে যে আপনি শত চেষ্টার পরও সেই পরিমান মানুষের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পারছেন না কিন্তু তাই বলে চেষ্টা ছেড়ে দিলে হবে না। বার বার চেষ্টা করুন। নিজের ভুলগুলি খুঁজে বের করার চেষ্টা করে সেগুলো সংশোধন করে আবার সবার সামনে নিজেকে নতুনভাবে উপস্থাপন করুন।

৭. একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরী করুন:
বর্তমান সময়ে নিজের চিন্তাধারাকে সবার সামনে তুলে ধরার সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হলো একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট। এর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি সবার সাথে যোগাযোগ স্থাপন সহ নিজের মতামত তুলে ধরতে পারবেন। তাছাড়া বর্তমান সময়ে খুব কম মূল্যেই একটি ভালো মানের ডোমেইন এবং হোস্টিং সার্ভিস পাওয়া সম্ভব। তাই আপনার বিষয়ের সাথে মিল রেখে ভালো মানের একটি নাম নির্বাচন করুন আর শুরু করে দিন আপনার জনপ্রিয় হওয়ার সফর।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech