জীবিত এই হাঙরটির বয়স প্রায় ৮ কোটি বছর!

  

পিএনএস ডেস্ক: জুরাসিক যুগে এই পৃথিবীর বুকে দাপিয়ে বেড়াত ডাইনোসররা। একথা তো আমরা সকলেই জানি। প্রাগৈতিহাসিক যুগের সেসব বিশালাকার প্রাণীদের নিয়ে একটি ছবিও তৈরি হয়েছিল হলিউডে।

নয়ের দশকে সারাবিশ্বে সাড়া ফেলেছিল হলিউডি ছবি ‘জুরাসিক পার্ক’। তবে এবার আর কল্পনা নয়, পর্তুগালের উপকূলে গভীর সমুদ্রে দেখা গেল জুরাসিক যুগের একটি হাঙরকে। বিজ্ঞানীদের অনুমান, হাঙরটির বয়স প্রায় ৮ কোটি বছর। জীবিত অবস্থায় ধরা পড়লেও, বয়সের কারণে হাঙরটিকে ‘জীবন্ত জীবাশ্ম’ বলছেন বিজ্ঞানীরা।

কালের নিয়মে ডাইনোসররা বিলুপ্ত হয়ে গেছে। কিন্তু, আধুনিক বিশ্ব থেকে জুরাসিক যুগের প্রতিনিধিরা যে হারিয়ে যায়নি, ফের তার প্রমাণ মিলল। ভূমধ্যসাগরের তীরে পর্তুগালের আলগার্ভ উপকূল পর্যটকের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়। মনোরম বিচের আকর্ষণে বিশ্বের নানা প্রান্তে থেকে সি আর সেভেনের দেশের এই উপকূলে ভিড় করেন পর্যটকরা।

পর্যটকদের থাকার জন্য এখানে রয়েছে প্রচুর রিসর্টও। এই আলগার্ভ উপকূল লাগোয়া সমুদ্রেই গবেষণা চালাচ্ছিলেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের একদল মৎস্যবিজ্ঞানী। উপকূল থেকে সাত শ’ মিটার দূরে সমুদ্রের গভীরে ওই হাঙরটিকে দেখতে পান তারা। আর পাঁচটা হাঙরের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা এই প্রাণীটি দেখে কৌতূহলী হন বিজ্ঞানীরা।

হাঙরটিকে পানি থেকে তুলে আনেন তারা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হাঙরটির মাথা সাপের মতো। কিন্তু, শরীর থেকে স্পষ্ট, প্রাণীটি আসলে একটি হাঙর। বিজ্ঞানী জানিয়েছেন, আজ থেকে প্রায় আট কোটি বছর আগে সমুদ্রে দাপিয়ে বেড়াত ফ্রিল্ড প্রজাতির এক ধরনের শিকারি হাঙরের দল। এটিও সেই প্রজাতিরই একটি পুরুষ হাঙর। প্রাণীটি লম্বায় দেড় মিটার। সেই হিসেবে মনে করা হচ্ছে, এই হাঙরটি বয়স কমপক্ষে আট কোটি বছর। অর্থাৎ হাঙরটি জুরাসিক যুগের বলেই মতো বিজ্ঞানীদের একাংশের।

এর আগে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও জাপান উপকূল থেকে প্রাগৈতিহাসিক যুগের হাঙর ধরা পড়েছিল। পর্তুগালের উপকূলে যেটি ধরা পড়েছে, সেটি সবার থেকে আলাদা। তাই হাঙর সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা নেই বিজ্ঞানীদেরও। তবে স্থানীয় একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মার্গারিডা কাস্ট্রো জানিয়েছেন, দাঁতের গড়নের জন্য এই প্রজাতির হাঙরকে ফ্রিল্ড হাঙর বলা হয়।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech